ঠাকুরগাঁওয়ে ৫ জনের মৃত্যু: চলাচলে নিষেধাজ্ঞা, স্কুল বন্ধ

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
ঠাকুরগাঁওয়ে অজ্ঞাত রোগে একই পরিবারের পাঁচজনের মৃত্যুর পর ওই এলাকায় দুটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধসহ জনগণের চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। ঘটনা তদন্তে গতকাল মঙ্গলবার ঢাকা থেকে এসেছে সরকারের রোগতত্ত¡, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের একটি বিশেষজ্ঞ দল। সার্বক্ষণিক চিকিৎসা দেওয়ার জন্য ঘটনাস্থলে একটি মেডিকেল টিম বসানোর পাশাপাশি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। আর এলাকায় বিতরণ করা হয়েছে ২০০ বিশেষ মুখোশ।
জেলার বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার মরিচপাড়া গ্রামে ফজর আলীর বাড়ির পাঁচ সদস্য গত ৯ ফেব্র“য়ারি থেকে ১৫ দিনের মধ্যে অজ্ঞাত রোগে মারা যান। এছাড় একই পরিবারের আরও তিনজন রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। এতে আতঙ্কিত হয়ে ওই গ্রামের অনেক পরিবার বাড়িতে তালা দিয়ে এলাকা ছেড়ে চলে গেছে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মাসুদুর রহমান মাসুদ বলেন, এ অবস্থায় তাৎক্ষণিক পদক্ষেপ হিসেবে নিহতদের বাড়ি থেকে আশপাশের এক কিলোমিটারে জনগণের চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।
ওই বাড়িতে যেন কোনো মানুষ চলাচল না করে সেজন্য সেখানে গ্রামপুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া ওই গ্রামের মানুষেদের ২০০ মাস্ক দেওয়া হয়েছে। ঘটনাস্থলে সার্বক্ষণিক চিকিৎসা দেওয়ার জন্য একটি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে এবং মেডিকেল টিম বসানো হয়েছে। ঘটনা তদন্ত করার জন্য উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে তিনি জানান।
উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা শামসুল আলম জানান, ইউএনওর পরামর্শে মরিচপাড়া গ্রামের পাশের ভাণ্ডারদহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ভাণ্ডারদহ উচ্চবিদ্যালয় মঙ্গলবারের জন্য বন্ধ রাখা হয়। বুধবার আবার খোলা হবে।
তবে নতুন করে ওই এলাকার কেউ অজ্ঞাত কোনো রোগে আক্রান্ত হননি বলে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ফিরোজ জামান জুয়েল জানিয়েছেন।
জেলার ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন শাহজাহান নেওয়াজ বলেন, অজ্ঞাত রোগটি পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য ঢাকা থেকে সরকারের রোগতত্ত¡, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর) থেকে একটি বিশেষজ্ঞ দল এসেছে। তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করবেন বলে জানান সিভিল সার্জন শাহজাহান।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.