February 25, 2024
আঞ্চলিক

জমি নিয়ে বিরোধ: দাকোপে মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ

 

দাকোপ প্রতিনিধি

দাকোপ উপজেলার কৈলাশগঞ্জ দক্ষিণপাড়া গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে অহেতুক মামলা দায়ের করে হয়রানির অভিযোগ উঠেছে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। জমি সংক্রান্ত বিষয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে বাকবিতÐা হলে ওই এলাকার বাবুরাম মÐল(৫০) নামের এক ব্যক্তি কৃষ্ণপদ মিস্ত্রীসহ ১০ জনের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। হয়রানিমূলক মামলার প্রতিবাদে তার বিরুদ্ধে ১৩ লাখ টাকার সম্মানহানি মামলা দায়ের করেন কোর্টে কৃষ্ণপদ মিস্ত্রী। যার নম্বর ১০০/১৯।

অভিযোগ ও এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, গত ১০ মার্চ সকাল ১১টার দিকে জমি নিয়ে উপজেলার কৈলাশগঞ্জ গ্রামের মৃত সতীষ মÐলের ছেলে বাবুরাম মÐলের সঙ্গে প্রতিবেশীদের দ্বন্দ শুরু হয়। একপর্যায়ে উভয়ের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এতে বাবুরাম মÐল বাদী হয়ে আদালতে স্বর্ণের চেন ছিনতায়ের অভিযোগ এনে ১০ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করেন। আসামীরা হল কৈলাশগঞ্জ গ্রামের মৃত কালিপদ মÐলের ছেলে রবিন্দ্রনাথ মÐল, মৃত হারান মÐলের ছেলে নির্মল মÐল, তাঁর ছেলে দেব মÐল, এলেমবরের ছেলে অমূল্য মিস্ত্রী, সুরেন মিস্ত্রীর ছেলে রবি মিস্ত্রী, কৃষ্ঠ রপ্তানের ছেলে কালিপদ রপ্তান, অমূল্য মিস্ত্রীর ছেলে নিউটন মিস্ত্রী, রাম মিস্ত্রীর ছেলে কৃষ্ণপদ মিস্ত্রী, রমেশ মিস্ত্রীর স্ত্রী বিউটি মিস্ত্রী ও বিষ্ণু বরকন্দাজের ছেলে বঙ্কিম বরকন্দাজকে।

স্থানীরা জানান, বাবুরাম একজন প্রভাবশালী ও অত্যন্ত খারাপ প্রকৃতির ব্যক্তি। তিনি আদালত সম্পর্কে ভাল বোঝেন বলে যখন তখন হয়রানিমূলক মামলা করে থাকেন। মামলার বিবাদীদের সঙ্গে জমি সংক্রান্ত বিষয়ে মনমালিন্য আছে। এই ঘটনায় স্বর্ণের চেন দিয়ে তাদেরকে হয়রানি করার জন্য মিথ্যা মামলা দায়ের করেন। তারা আরও বলেন, হিন্দু ধর্মাম্বলীদের বিধবা স্ত্রী কখনও স্বর্ণের গহনা পরেন না। তাছাড়া প্রায় ১০ বছরের মধ্যে সুধা রানীর গলায় কখনও স্বর্ণের চেন পরতে দেখা যায়নি। বিষয়টি জানার জন্য বাবুরাম মণ্ডলের বাড়িতে গেলেও তাকে পাওয়া যায়নি। পরে তার মুঠোফোনে একাধিকবার কল করেও কোনো সংযোগ মেলেনি।

মামলার তদন্তকারী দায়িত্ব প্রাপ্ত দাকোপ উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান গৌরপদ বাছাড় মুঠোফোনে বলেন, আমি এ মামলাটি তদন্তর দায়িত্ব পেছেছি। শুনেছি জমি সংক্রান্ত বিষয়ে তাদের মধ্যে কন্দোলন রয়েছে। তবে তদন্ত প্রতিবেদনের জন্য বাবুরাম মÐলকে অবগত করা হলেও তিনি তার সাড়া দেয়নি।

 

 

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *