খুলনাবাসীর চাহিদা ও আকাঙ্ক্ষা পূরণের লক্ষ্যে দাবি আদায়ে সর্বদা সোচ্চার থাকতে হবে

খবর বিজ্ঞপ্তি
খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটিকে দলমতের উর্ধ্বে থেকে খুলনার উন্নয়নে নিবেদিত হয়ে কাজ করার আহবান জানিয়ে বলেন, খুলনাবাসীর চাহিদা ও আকাঙ্ক্ষা পূরণের লক্ষ্যে বিভিন্ন দাবি আদায়ের জন্য এই সংগঠনকে সর্বদা সোচ্চার থাকতে হবে। তিনি বলেন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা খুলনাঞ্চলের উন্নয়নে অত্যন্ত আন্তরিক। তাঁর সদিচ্চার কারণেই দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষের অন্যতম দাবী খান জাহান আলী (র.) সেতু নির্মিত হয়েছে। স্থবির হয়ে থাকা মোংলা বন্দর সচল করা, খুলনায় কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়সহ গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা এবং চলমান পদ্মাসেতু নির্মাণ, খান জাহান আলী বিমানবন্দর, মোংলা-বেনাপোল রেললাইন স্থাপন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আন্তরিকতার কারণেই সম্ভব হয়েছে।
সিটি মেয়র শনিবার বেলা ১১টায় নগরীর একটি অভিজাত হোটেলে বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির দ্বি-বার্ষিক সাধারণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন। সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি শেখ মোশাররফ হোসেন এবং বার্ষিক রিপোর্ট তুলে ধরেন সংগঠনের মহাসচিব শেখ আশরাফ উজ-জামান।
প্রধান অতিথির বক্তৃতায় সিটি মেয়র আরো বলেন, ইতোপূর্বে কোন সরকার খুলনার উন্নয়নে এত বিপুল অর্থ বরাদ্দ দেয়নি। কেসিসি’র অনুকূলে মহানগরীর ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় ৮’শ কোটি, সড়ক নির্মাণ ও পুন:নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় ৬’কোটি টাকার কাজ দ্রুত বস্তাবায়িত হচ্ছে। এছাড়া নগরীর বর্জ্য ব্যবস্থাপনা আধুনিকায়নের লক্ষ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী অতি সম্প্রতি প্রায় ৪’শ কোটি টাকার প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছেন। কেসিসি ছাড়াও খুলনাবাসীর চাহিদার আলোকে নগরীর সামছুর রহমান রোডে নির্মাণাধীন কনভেনশন সেন্টারসহ দৌলতপুর এলাকায় ভৈরব ব্রীজ, খুলনায় দেশের দ্বিতীয় ডেন্টাল কলেজ নির্মাণ, শেখ হাসিনা মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, বিভাগীয় শিশু হাসপাতাল, শেখ কামাল আইটি পার্ক নির্মিত হবে। প্রকল্পগুলি বস্তাবায়িত হলে খুলনা অভূতপূর্ব উন্নতি সাধিত হবে বলে সিটি মেয়র উল্লেখ করেন।
নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমডি এ বাবুল রানা, সাবেক সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম মঞ্জু, কেসিসি’র কাউন্সিলর শেখ হাফিজুর রহমান, জেড এ মাহমুদ ডন, শেখ মোহাম্মদ আলী, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান চৌধুরী রায়হান ফরিদসহ কেসিসি’র কাউন্সিলর, বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির নেতৃবৃন্দ ও নগরীর গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ সভায় উপস্থিত ছিলেন। সভা পরিচালনা করেন কমিটির সহ-সভাপতি নাগরিক নেতা শাহিন জামান পন।
এছাড়া সভায় সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দিন, সেখ সালাহউদ্দিন জুয়েল ও বিসিবি’র পরিচালক শেখ সোহেল-এর মাতা বেগম রিজিয়া নাসের, সাবেক সংসদ সদস্য এম নুরুল ইসলাম দাদুসহ কমিটির প্রয়াত সদস্য, করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণকারী ও বিভিন্ন শ্রেণিপেশার ব্যক্তিবর্গের জন্য শোক প্রস্তাব গৃহীত হয় এবং তাদের রূহের মাগফেরাত কামনায় দোয়া করা হয়। শোক প্রস্তাব উত্থাপন করেন কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি মিজানুর রহমান লালু।

দক্ষিণাঞ্চল প্রতিদিন/ এম জে এফ

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *