কেশবপুরে বসত-ভিটা রক্ষায় অসহায় ৪টি পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

 

কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি

কেশবপুর অসহায় ৪টি পরিবারকে বসত-ভিটা থেকে বিতাড়িত করতে প্রভাবশালী কর্তৃক নানামুখি ষড়যন্ত্র অব্যাহত রয়েছে। বসত-ভিটা রক্ষা করতে সংবাদ সম্মেলন করেছে ঐ অসহায় ৪টি পরিবার। গতকাল সোমবার সকালে কেশবপুর শহরে নিজ বাড়িতে সংবাদ সম্মেলনে মৃত মনছোপ গাজীর পূত্র আলী আহম্মেদ গাজী বলেন, ১৯৯২ সালে কেশবপুর মৌজার ১নং খাস খতিয়ানের ৩২৩ দাগে ৭ শতক জমিতে আমি ও আমার ভাই আলী আকবর বসবাস করে আসছি।

বর্তমানে আমি, আমার পূত্র সোহাগ গাজী ও সুমন গাজী এবং আমার ভাই আলী আকবর গাজীর মৃত্যুর পর তার পূত্র রমজান গাজী পরিবার-পরিজন নিয়ে বসবাস করে আসছি। আমরা ভাংড়ির ব্যবসা করে অতি কষ্টে জীবন-যাপন করছি। আমরা ভূমিহীন হওয়ায় ঐ ৭ শতক জমি বন্দোবস্তো নেওয়ার জন্য উপজেলা ভূমি অফিসে আবেদন করলেও বন্দোবস্তো না দেওয়ায় আমরা ৪টি পরিবার দিশেহারা হয়ে পড়েছে। এদিকে প্রতিবেশি মৃত ধূনা গাজীর পূত্র প্রভাবশালী শফিকুল ইসলাম গত ২ বছর যাবৎ আমাদের ঐ ৭ শতক জমি জবর-দখলের জন্য ষড়যন্ত্র করে আসছে। বিভিন্ন সময় শফিকুল ইসলাম আমাদের বাড়িতে ইচ্ছাকৃত ভাবে ময়লা ফেলা-সহ শিশুদের মারপিট করে। প্রতিবাদ করলে গালিগালাজ-সহ আমাদেরকেও মারপিটের হুমকী প্রদান করে। আমাদের ৪টি পরিবারকে বসত-ভিটা থেকে বিতাড়িত করতে ঐ শফিকুল ইসলাম ইতিমধ্যে উপজেলা ভূমি অফিসে একটি অভিযোগ করেছে।

এমনটি জনৈক সাংবাদিক-কে মিথ্যা তথ্য সরবারাহ করে গত ৪ এপ্রিল দৈনিক গ্রামের কাগজে একটি মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদ প্রকাশ করিয়েছে। সেখানে আমাকে মাদক ব্যবসায়ী আখ্যায়িত করেছে যা সম্পূর্ণ মিথ্যা,  বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। আমি আদৌ মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত নই। সংবাদ সম্মেলনে তিনি তাদের ৪টি পরিবারের বসত-ভিটা রক্ষায় উপজেলা প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

 

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.