২০২৩ সালে যুক্তরাজ্যে কমবে প্রবৃদ্ধি, বাড়বে বেকারত্ব

আগামী বছর ব্রিটেনের অর্থনীতি শূন্য দশমিক চার শতাংশ সংকোচিত হওয়ার পথে। দেশটিতে একদিকে রয়েছে উচ্চ মূল্যস্ফীতি অন্যদিকে কোম্পানিগুলো বিনিয়োগ বন্ধ করে রেখেছে। বলা হচ্ছে, সেখানে অর্থনীতিতে দীর্ঘমেয়াদে নেতিবাচক প্রবণতা থাকবে। সোমবার (৫ ডিসেম্বর) কনফেডারেশন অব বিজনেস ইন্ডাস্ট্রি (সিবিআই) এক পূর্বাভাসে এ তথ্য জানিয়েছে। খবর রয়টার্সের।

সিবিআইয়ের মহাপরিচালক টনি ড্যানকার বলেন, যুক্তরাজ্যে বর্তমানে নানা ক্ষেত্রে অস্থিতিশীলতা রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে আকাশচুম্বী মূল্যস্ফীতি, নিম্নমুখী সূচক, উৎপাদন ও বিনিয়োগে পতন। কোম্পানিগুলোর যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে কিন্তু নেতিবাচক সূচকগুলো ২০২৩ সালের বিনিয়োগে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সিবিআই চলতি বছরের জুনে যে পূর্বাভাস দিয়েছিলে পরিস্থিতি তার চেয়ে এখন খারাপ। তখন ২০২৩ সালের জন্য এক দশমিক শূন্য শতাংশ প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছিল। তাছাড়া দেশটির জিডিটি ২০২৪ সালের মাঝামাঝি সময়ের আগে করোনা মহামারির আগের লেভেলে আসবে না বলেও মনে করা হচ্ছে।

ইউক্রেনে রাশিয়ার হামলার পরই তীব্র জ্বালানি সংকটে পড়ে ব্রিটেন। বেড়ে যায় গ্যাস ও তেলের দাম। এতে মানুষের জীবনযাত্রার ব্যয় প্রায় অসহনীয় পর্যায়ে পৌঁছেছে। তাছাড়া করোন মহামারির পর শ্রমবাজারও ঘুরে দাঁড়ায়নি। এমন পরিস্থিতির মধ্যেই ধারাবাহিকভাবে কমছে বিনিয়োগ ও উৎপাদন।

সিবিআই জানিয়েছে, ২০২৩ সালে দেশটিতে বেকারত্বের হার দাঁড়াতে পারে পাঁচ শতাংশে। বর্তমানে যুক্তরাজ্যে বেকারত্বের হার তিন দশমিক ছয় শতাংশ।

চলতি বছরের অক্টোবরে যুক্তরাজ্যের মূল্যস্ফীতি ৪১ বছরের মধ্যে বেড়ে ১১ দশমিক এক শতাংশ হয়, যা ভোক্তাদের চাহিদায় প্রভাব ফেলেছে। সিবিআইয়ের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আগামী বছর এটি সাত শতাংশের নিচে চলে আসবে। আর ২০২৪ সালে আসবে তিন শতাংশের নিচে।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *