হাছান মাহমুদকে এনএসআইয়ের প্রধান করা উচিত : রিজভী

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
হাছান মাহমুদকে তথ্যমন্ত্রীর পদ থেকে সরিয়ে জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থার প্রধান হিসেবে নিয়োগ দেওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।
চকবাজারের অগ্নিকান্ডের ঘটনার সঙ্গে বিএনপির সংশ্লিষ্টতা আছে কিনা খুঁজে দেখা হবে- তথ্যমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় রোববার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, এরকম উদ্ভট লোকেরা যদি মন্ত্রী হয়, তাহলে এই সরকার এবার বঙ্গোপসাগরে না, খাল-বিলের পানিতেই ডুবে যাবে। এমনিতে তারা ডুবে গেছে এখন অতলে ডুবে যাওয়ার জন্য হাসান মাহমুদরাই যথেষ্ট।
আমি বলতে চাই, হাসান মাহমুদকে তথ্যমন্ত্রী করাটা বোধ হয় সরকারের খুব অন্যায় হয়ে গেছে। এরকম তথ্য যখন তার কাছে থাকে, তাকে জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা এনএসআইয়ের প্রধান করে দিন। আর তথ্যমন্ত্রীত্বে রাখা উচিত হবে না।
বুধবার রাতের ওই অগ্নিকাণ্ডে হতাহতের পরদিন শোক জানাতে গিয়ে বিএনপি মহাসচিব সরকারের সমালোচনা করে বলেন, বর্তমান সরকারের সর্বক্ষেত্রে ব্যর্থতা রয়েছে। আজকে সব জায়গায় মানুষ অকারণে জীবন হারাচ্ছে। এর কারণ হচ্ছে সরকারের দায়িত্বহীন ও অব্যবস্থাপনা।
এরপর শনিবার চট্টগ্রামে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিবকে উদ্দেশ্য করে হাছান মাহমুদ বলেন, গণতন্ত্র নাই বিধায় চকবাজারে আগুন লেগেছে। এটা কী রকম দায়িত্বহীন কথা, এটা বলার অপেক্ষা রাখে না। এটির মাধ্যমে ফখরুল সাহেব তাহলে প্রকারান্তরে বলেছেন এটির সাথে তাদের সংশ্লেষ আছে।
তিনি আরও বলেন, চকবাজারে আগুনের সাথে গণতন্ত্রের কী সম্পর্ক, তা আমি জানি না। তবে এই কথার মাধ্যমে এটিই ব্যাখ্যা দেওয়া যায়, তাহলে কী পেট্রোল বোমার মতো এটির সাথেও তাদের কোনো সংশ্লেষ আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা প্রয়োজন।
রোববারের সংবাদ সম্মেলনে রিজভী সাভারের রানা প্লাজা ধসের পর তৎকালীন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহীউদ্দিন খান আলমগীরের উদ্ধৃতি টেনে বলেন, আগের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও বলেছিলেন, বিএনপির নেতাকর্মীরা রানা প্লাজায় ধাক্কার মেরেছে। উদ্ভট আর একটা কমিক ইন্টারনেইনমেন্ট, কৌতুক দেখিয়া হাস্যরস তৈরি করা- আওয়ামী লীগের মন্ত্রীরা হয়েছেন এ ধরনের।
ওবাদুল কাদের সাহেব বলছেন, সরকার (অগ্নিকাণ্ড) দায় এড়াতে পারে না, এই সরকারের সাবেক মন্ত্রী দিলীপ বড়ুয়াও বলছেন। তাহলে বলুন এই যদি অবস্থা হয়, তাহলে সরকার কীভাবে চলছে ?
নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আহমেদ আজম খান, শওকত মাহমুদ, কেন্দ্রীয় নেতা এবিএম মোশাররফ হোসেন, আবদুস সালাম আজাদ, মীর নেওয়াজ আলী, আবদুল আউয়াল খান উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.