হরি, তেলিগাতী ও ঘ্যাংরাইল নদী পরিদর্শনে পানি কমিটির নেতৃবৃন্দ

তালা (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি
বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা উত্তরণ ও পানি কমিটির পক্ষ থেকে হরি, তেলিগাতী ও ঘ্যাংরাইল নদী পরিদর্শন করা হয়েছে। গত ১৬ জানুয়ারী (বৃহস্পতিবার) দিনব্যাপী পানি কমিটির উদ্যোগে নদীগুলো পরিদর্শন করা হয়। ভবদহের ২১ ভেন্টের স্লুইসগেট থেকে ২টি ট্রলার (ইঞ্জিন চালিত বড় নৌকা) যোগে শতাধিক পরিদর্শনকারী সকাল ১০ টায় যাত্রা শুরু করে হরি নদীর নিম্নাংশে প্রায় ৫৫ কিলেমিটার অববাহিকা পরিদর্শন করেন। উত্তরণ-এর সহায়তায় ও পানি কমিটির আয়োজনে নদী পরিদর্শনে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড যশোরের নির্বাহী প্রকৌশলী প্রবীর কুমার গোস্বামীসহ নওয়াপাড়া, ডুমুরিয়া, চুকনগর, তালা উপজেলার প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রোনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ, পানি কমিটি নেতৃবৃন্দ, সংশ্লিষ্ট চেয়ারম্যানবৃন্দ, ভবদহ এলকার ভুক্তভোগী অধিবাসীসহ বিভিন্ন নাগরিক সংগঠনের সদস্যবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।
উল্লেখ্য, গত ৮ ডিসেম্বরে হরি রিভার বেসিন কমিটি কর্তৃক কপোতাক্ষ নদ অববাহিকার তালা উপজেলার পাখিমারা টিআরএম বিল ও পলি ভরাটকৃত শিবসা নদী পরিদর্শন করে। পরিদর্শন শেষে উক্ত কমিটি উত্তরণ পরিচালক শহিদুল ইসলামের সাথে সাক্ষাত করেন এবং উক্ত আলোচনার মাধ্যমে মনিরামপুর-অভয়নগর উপজেলার ভবদহ এলাকার টিআরএম বাস্তবায়নে সকল পক্ষকে একমঞ্চে আনার জন্য হরি নদী ও তার নিম্নাংশ পরিদর্শনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন।
পরিদর্শনকালে হরি নদীর নিম্নাংশ তেলিগাতী-ঘ্যাংরাইল নদীর শেষে মধুখালীর পাঁচ মোহনা পর্যন্ত মূল নদীর সার্বিক অবস্থা ও প্রবাহ, আন্তঃনদী সংযোগ স্থানসমূহ পর্যবেক্ষণ, নদী বক্ষে পলির অবক্ষেপন পরিমাপ অর্থাৎ গভীরতা পরিমাপ, নদীর উপর নির্মাণাধীণ ব্রিজ, জেলেদের জাল ব্যবহারসহ অন্যান্য প্রতিবন্ধকতাসমূহ চিহ্নিত করা, স্লুইসগেট সমূহ পর্যবেক্ষন করা হয়। এ সময় উত্তরণ কর্তৃক প্রকাশিত টিআরএম বিষয়ক পোষ্টার প্রদর্শিত হয় এবং ভবদহ এলাকার সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানসহ সকলের কাছে তুলে দেয়া হয়।
পরে পাঁচ নদীর মোহনায় এক মতবিনিময় সভায় কেন্দ্রীয় পানি কমিটির সভাপতি অধ্যক্ষ এবিএম শফিকুল ইসলাম, মনিরামপুর উপজেলা পানি কমিটির সভাপতি সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান অ্যাড. কামরুজ্জামান, সহ-সভাপতি সাবেক অভয়নগর উপজেলা চেয়ারম্যান আঃ মালেক, হরি রিভার বেসিন কমিটির সাধারণ সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান বিষ্ণুপদ দত্ত, তালা উপজেলা পানি কমিটির সভাপতি মোঃ ময়নুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মীর জিল্লুর রহমান, ভবদহ এলাকার পানি ব্যবস্থাপনা কমিটির ই-জোনের সাধারণ সম্পাদক মোঃ রুহুল আমিন, অধ্যাপক হাসেম আলী ফকির, প্রভাষক মদন মোহন চক্রবর্তী, নেহালপুর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ নাজমুস সাদাত, কুলটিয়া ইউপি চেয়ারম্যান শেখর কুমার রায়, মনোহরপুর ইউপি চেয়ারম্যান মশিয়ার রহমান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
সংশ্লিষ্ট সকল দপ্তর, সংগঠন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, প্রিন্ট ও ইলেকেট্রনিক্স মিডিয়া ও ভূক্তভোগী জনগণকে নদী রক্ষায় এক মঞ্চে একত্রিত করে এ ধরণের আয়োজন অনন্য নজির স্থাপন করেছে। তাছাড়া অংশগ্রহণকারী সকল শ্রেণী-পেশার মানুষ ভবদহ এলাকার সমস্যা সমাধানে প্রাণ খুলে কথা বলেন এবং প্রথমবারের মতো ঐক্যমতে পৌঁছান। সর্বোপরি নদী রক্ষায় টিআরএম বাস্তবায়নের পক্ষে সকলেই আন্তরিক মনোভাব প্রকাশ করেন। উপকূলীয় এ জনপদকে রক্ষায় এলাকার সর্বস্তরের মানুষকে নদীর গুরুত্ব, নদীর মৃত্যু, নদী মৃত্যুর কারণ, পলির ধারণা, উজান প্রবাহ, জলাবদ্ধতা, জীবন-জীবিকার বিষয়গুলো বাস্তব ক্রিয়া কর্মে প্রতিফলিত করার জন্য এ ধরণের কার্যক্রম অনন্য উদাহরণ হিসেবে পথ দেখাবে বলে সংশ্লিষ্টরা অভিমত ব্যক্ত করেন।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *