সাংবাদিকের ওপর হামলায় ৫ কারারক্ষী বরখাস্ত

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে বের হওয়া ভ্যানবোঝাই গমের ছবি তুলতে গিয়ে মারধরের শিকার হয়েছেন শামীম আহম্মেদ নামে এক ফটো সাংবাদিক। এ ঘটনায় এরইমধ্যে পাঁচ কারারক্ষীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। পাশাপাশি একটি জাতীয় দৈনিকের ওই ফটো সাংবাদিককে বরিশাল সদর (জেনারেল) হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।
আহত ফটো সাংবাদিক শামীম আহম্মেদ বলেন, শনিবার দুপুরে বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে একটি ভ্যানে করে ১১ বস্তা গম বের করার সময় পুলিশ ওই গম আটক করে। এসময় কারারক্ষী ও পুলিশের মধ্যে গমের বস্তা নিয়ে টানাটানির ঘটনা ঘটলে খবর পেয়ে তিনি ঘটনাস্থলে গিয়ে ছবি তোলার চেষ্টা করেন। বিষয়টি কয়েকজন কারারক্ষী দেখতে পেয়ে কারাগারের প্রধান ফটকের সামনে (বাহিরের অংশে) বসেই আমাকে মারধর শুরু করেন। তিনি জানান, পরে টানা হেঁচড়া করে কারা অভ্যন্তরে নিয়ে বুট দিয়ে লাথি ও এলোপাথারি পেটায় কারারক্ষীরা। এসময় সামনে জেলার ইউনুস জামান দাঁড়িয়ে থাকলেও তিনি কোনো বাধা দেয়নি।
এদিকে এ ঘটনায় তাৎক্ষণিক বরিশালের সাংবাদিকরা জানতে পেরে তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে এর প্রতিবাদ জানায় এবং ডিআইজি প্রিজন তওহিদুল ইসলাম ও সিনিয়র জেল সুপার প্রশান্ত কুমার বণিকের কাছে এ ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে কারাগারের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা তাৎক্ষণিক হামলা ও মারধরের ঘটনায় জড়িত কারারক্ষী উজ্জল মিয়া, আবুল খায়ের, আবু বক্কর সিদ্দিক খোকন, কাওছার ও সাঈদ নামে পাঁচজনকে সাময়িক বরখাস্ত করেন এবং পরে তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন।
বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগারের জ্যেষ্ঠ জেল সুপার প্রশান্ত কুমার বণিক জানান, কারারক্ষীরা মাসের রেশনের চাল-গম না নিয়ে তা বিক্রি করে দেয়। সেই গমের কিছু অংশ শনিবার বাইরে বিক্রির জন্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছিলো। এ সময়ে ওই ফটো সাংবাদিকদের সঙ্গে কারারক্ষীদের কিছু ভুলবোঝা বুঝি হলে অপ্রীতিকর এ ঘটানা ঘটে। এজন্য আমরা লজ্জিত ও ক্ষমাপ্রার্থী। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
বরিশালের ডিআইজি প্রিজন তওহিদুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনার শোনার সঙ্গে সঙ্গে সিনিয়র জেল সুপারকে তদন্তের নিদের্শ দেওয়া হয়। প্রাথমিক তদন্তে ফটো সাংবাদিক শামীকে মারধরের সত্যতা পাওয়ায় পাঁচজনকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে। এছাড়া তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ঘটনার সঙ্গে আরো কেউ জড়িত থাকলে তাদেরও চিহ্নত করে এই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
অপরদিকে গম জব্দের বিষয়ে বরিশাল কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাইনুল জানান, নগরের বাজাররোড থেকে ২২ বস্তা গম জব্দ হয়েছে এবং দু’জনকে আটক করা হয়েছে। গমগুলো কারাগার থেকে বের হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, যাচাই-বাছাই করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.