শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আপাতত চালু থাকবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন সংক্রমণ রোধে আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক করেছে সরকার। এ বৈঠকে আপাতত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চালু রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের টিকা কার্যক্রম জোরদার করার তাগিদ দেওয়া হয়েছে।

সোমবার (৩ জানুয়ারি) সন্ধ্যা সোয়া ৬টায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সভাকক্ষে দুই ঘণ্টাব্যাপী বৈঠক শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এ কথা জানিয়েছেন।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলামের সভাপতিত্বে বৈঠকে প্রধান অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চালু থাকবে। কিন্তু বলা হয়েছে শিক্ষার্থীরা টিকাটা যেন গ্রহণ করে। শিক্ষার্থীরা টিকা নেওয়ার বিষয়ে ঢিলেঢালা ভাবে আছেন। আমরা চাচ্ছি এটাকে আরও জোরদার করা হোক, এতে আমরা সহযোগিতা করবো। আমাদের পক্ষে যতটুকু করা দরকার সেটা করেছি। আমরা আহ্বান করছি যাতে স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের তাড়াতাড়ি টিকা দেওয়া হয় এবং দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়।

করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় গত বছরের ১২ সেপ্টেম্বর থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সীমিত পরিসরে ক্লাস চালু করা হয়েছে। আগামী মার্চ পর্যন্ত সেভাবেই ক্লাস চলবে বলে জানায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। তবে সংক্রমণ বেড়ে যাওয়া এবং নতুন ভ্যারিয়েন্ট দেখা দেওয়ায় অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের ভাবিয়ে তুলেছে।

বৈঠকে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সচিব, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অংশ নেন। এছাড়া বৈঠকে ভার্চ্যুয়ালি যুক্ত ছিলেন দেশের বিভিন্ন জেলার ডিসি, এসপি, ডিআইজি, পুলিশ কমিশনার, বিভাগীয় কমিশনার, স্বাস্থ্য বিভাগের পরিচালক, সিভিল সার্জন এবং বিভিন্ন বাহিনীর প্রতিনিধি।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.