রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে সংসদীয় কমিটি গঠনের দাবি

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে জাতীয় সংসদে আলোচনা ও একটি সংসদীয় কমিটি গঠনের দাবি জানিয়েছেন সরকারি দল ও জোটের সংসদ সদস্যরা। সমস্যা সমাধানে এই কমিটিকে ভারত, চীন, মিয়ানমার ও জাতিসংঘে গিয়ে আলোচনার প্রস্তাব করা হয়েছে।
গতকাল বুধবার জাতীয় সংসদের অধিবেশনে পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য সাবেক মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এ প্রস্তাব করেন। এরপর এই প্রস্তাবকে সমর্থন করে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলের শরিক ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনু ও তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান নজিবুল বশর মাইজভাণ্ডারী বক্তব্য রাখেন।
মোহাম্মদ নাসিম বলেন, আমাদের দেশে গত কয়েক বছরে ১১ লাখ রোহিঙ্গা এসেছে। মিয়ানমার ফিরিয়ে নেবে বললেও এ ব্যাপারে কোনো পদক্ষেপ নেই। এখন পর্যন্ত মাত্র তিনজন ফিরে গেছে। কতদিন আমরা আর এই বোঝা বহন করবো। এ ব্যাপারে সব দল মিলে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে কি করণীয় তা নতুন সংসদে আলোচনা করা দরকার। প্রয়োজনে একটি কমিটি গঠন করে ভারত, চীন ও মিয়ানমারে গিয়ে সমস্যাটি নিয়ে কথা বলতে হবে।
ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি সাবেক মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেন, আমি মনে করি মোহাম্মদ নাসিম যৌক্তিকভাবেই বিষয়টি তুলেছেন। এই সমস্যা সমাধানে জাতীয় সংসদের সদস্যদের কি মতামত সেটা জানা উচিত। রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়নমারের সঙ্গে যে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি হয়েছে সেটা কতটুকু যথাযথ ছিল তা খতিয়ে দেখা দরকার।
‘রোহিঙ্গারা স্বেচ্ছায় যেতে চাইলে যাবে চুক্তিতে এই স্বেচ্ছা শব্দটি যুক্ত করা বাংলাদেশের পক্ষে গিয়েছে বলে আমি মনে করি না। এই সসস্যা চলতে পারে না। এটা নতুন আরও সমস্যা তৈরি করতে পারে। এর সঙ্গে আঞ্চলিক ও সামাজিক স্থিতিশীলতার বিষয় জড়িত।’
জাসদের সভাপতি সাবেক মন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেন, মোহাম্মদ নাসিম যে প্রস্তাব দিয়েছেন এটা যথার্থ। বিশ্ববাসীর কাছে বলা দরকার আমরা এই সমস্যাটি কীভাবে দেখছি। বিষয়টি নিয়ে সংসদে আলোচনার জন্য একটি দিন ধার্য করুন। রোহিঙ্গা সসস্যা সমাধানে আমাদের দৃস্টিভঙ্গি কি সেটা দেশবাসীর কাছে ও বিশ্ববাসীর কাছে বলা উচিত।
‘একটি সংসদীয় কমিটি গঠন করে সংশ্লিষ্ট দেশ ও জাতিসংঘে গিয়ে আলোচনা করা উচিত। এ ব্যাপারে ত্রিপক্ষীয় উদ্যোগ ছাড়া দ্বিপক্ষীয় উদ্যোগ দিয়ে সমস্যা সমাধান হবে না। এটা শুধু বাংলাদেশের সমস্যা না, আন্তর্জাতিক সমস্যা।
তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান নজিবুল বশর মাইজভাণ্ডারী বলেন, যে সব প্রস্তাব এসেছে আমি এর সঙ্গে একমত পোষণ করছি। কারণ চট্টগ্রামের অবস্থা ভয়াবহ। এ ব্যাপারে একটি সংসদীয় কমিটি করে সমস্যা সমাধান করতে হবে।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.