রোহিঙ্গাদের আরও ১৭০ মিলিয়ন ডলার সহায়তা দেবে যুক্তরাষ্ট্র

রোহিঙ্গাদের জন্য আরও ১৭০ মিলিয়ন ডলার মানবিক সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। বাস্তুচ্যুত হয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়াদের পাশাপাশি মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে এখনো অবস্থান করা রোহিঙ্গারা এ অর্থ সহায়তা পাবে।

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন এ সহায়তার ঘোষণা দেন। শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) ঢাকাস্থ মার্কিন দূতাবাস থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, ঘোষিত এ মানবিক সহায়তার মধ্যে স্টেট ডিপার্টমেন্ট থেকে ৯৩ মিলিয়ন ডলার ও যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থা ইউএসএআইডি থেকে ৭৭ মিলিয়ন ডলার দেওয়া হবে। যার মধ্যে ১৩৮ মিলিয়ন ডলার বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া ৯ লাখ ৪০ হাজারের বেশি রোহিঙ্গা শরণার্থী ও তাদের আশ্রয় দেওয়া পাঁচ লাখ ৪০ হাজারের বেশি স্থানীয় জনগোষ্ঠীর জীবনমানের টেকসই উন্নয়ন কার্যক্রমে ব্যয় করা হবে।

২০১৭ সালের আগস্ট থেকে রোহিঙ্গা শরণার্থী সংকট মোকাবিলায় যুক্তরাষ্ট্র সহায়তা দিয়ে আসছে। এ পর্যন্ত মোট সহায়তার পরিমাণ ১ দশমিক ৯ বিলিয়ন।

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশ এবং রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়া এ অঞ্চলের অন্যান্য দেশগুলোর উদারতার প্রশংসাও করেছে। একই সঙ্গে মানবিক কার্যক্রমে আর্থিক সহায়তা দিতে এবং মিয়ানমারের সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের জন্য সহায়তা বাড়াতে দাতাদের প্রতি অনুরোধ করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

মিয়ানমারে উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি হলে বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গারা নিরাপদে, স্বেচ্ছায়, মর্যাদার সঙ্গে ফিরে যেতে পারে সেজন্যও কাজ করছে যুক্তরাষ্ট্র। সংকটের সমাধান খুঁজে পেতে বাংলাদেশ সরকার, রোহিঙ্গা ও মিয়ানমারের অভ্যন্তরে থাকা জনগণের সঙ্গেও কাজ করছে দেশটি।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *