রোহিঙ্গাদের অবশ্যই ফিরিয়ে নিতে হবে : অ্যাঞ্জেলিনা জোলি

 দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক  

 

জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ‘ইউএনএইচসিআর’র বিশেষ দূত ও হলিউড অভিনেত্রী অ্যাঞ্জেলিনা জোলি বলেছেন: রোহিঙ্গারা হচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে নির্যাতিত জনগোষ্ঠীর মধ্যে অন্যতম। তাদের উপর গণহত্যা, ধর্ষণের মতো ঘটনা ঘটেছে। তিনি আরও বলেন: রোহিঙ্গাদের অবশ্যই নাগরিকত্ব দিয়ে নিজ দেশ মিয়ানমারে ফিরিয়ে নিতে হবে। যতদিন পর্যন্ত রোহিঙ্গা সংকটের সমাধান না হবে ততদিন পর্যন্ত আন্তর্জাতিক স¤প্রদায়কে এসব নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের পাশে থাকার আহŸান জানান তিনি।  

 

কক্সবাজার সফরের দ্বিতীয় দিন গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে এক সংসবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। দুই দিন উখিয়া ও টেকনাফের বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করেন তিনি।  

 

তিনি বলেন: বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া নির্যাতিত রোহিঙ্গারা একটি দেশহীন জাতি হিসেবে এখানে অবস্থান করছে। তাদের অবশ্যই নিজ দেশে ফিরে যাওয়ার অধিকার রয়েছে। রাখাইনে এখনও এসব নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে যাওয়ার পরিবেশ সৃষ্টি হয়নি বলেও জানান এই অভিনেত্রী।  

 

ব্রিফিং এর শুরুতে তিনি কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফের বিভিন্ন শরণার্থী ক্যাম্প ঘুরে দেখার দুই দিনের অভিজ্ঞতার বর্ণনা দেন: আমি গত দু’দিনে দুটো উপজেলার প্রায় সবকটি ক্যাম্প ঘুরে দেখেছি। নির্যাতনের মুখে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা নারী শিশুদের মুখে তাদের উপর চলা নির্যাতনের বর্ণনা শুনেছি। তাদের একেক জনের বর্ণনা একেক রকম। নির্যাতিতদের বর্ণনা শুনে আমি হতবাক হয়ে গেছি।  

 

জোলি বলেন: এত লোমহর্ষক ঘটনা ঘটেছিল রাখাইনে তা শোনার পর আমি অন্যরকম হয়ে গেছিলাম। বিশেষ করে নারী ও শিশুদের উপর চলা নির্যাতনের বর্ণনা শুনে আমার মন ভেঙ্গে গেছে।  

 

এই হলিউড অভিনেত্রী সংবাদমাধ্যমকে আরো বলেন, এসব নির্যাতিত মানুষ অসহায় অবস্থায় যখন বাংলাদেশে আসে, বাংলাদেশে তখন তাদের পাশে দাঁড়িয়ে মানবিকতার পরিচয় দিয়েছে। এসব নির্যাতিত মানুষ তাদের নিজ দেশে ফেরার অধিকার রাখে। তাই বিশ্ববাসীকে নির্যাতিত এসব মানুষের অধিকার ফিরিয়ে দেয়ার লক্ষ্যে তাদের পাশে দাঁড়াতে হবে। সংবাদ সম্মেলন শেষে তিনি কক্সবাজারের উখিয়ার ইনানী রয়েল টিউলিপ হোটেলে ফিরে আসেন।  

 

এর আগে সকাল সাড়ে ৮টায় হোটেল থেকে তিনি জান ঘুম টুম ট্রানজিট ক্যাম্পে। সেখানে রোহিঙ্গাদের সাথে কথা বলেন। এরপর রেড ক্রিসেন্ট হাসপাতালে যান। সেখানে শারীরিক ও মানসিক অসুস্থ রোগীদের সাথে কথা বলেন এই অভিনেত্রী, খোঁজখবর নেন তাদের চিকিৎসা সেবার। হাসপাতাল থেকে তিনি কুতুপালং ৪ নাম্বার ক্যাম্পসহ কয়েকটি ক্যাম্প ঘুরে দেখেন। কথা বলেন ওইসব ক্যাম্পে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের সাথে। আজ কক্সবাজারে প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠক করার কথা রয়েছে তার। সোমবার কক্সবাজার সফরে আসেন হলিউড অভিনেত্রী অ্যাঞ্জেলিনা জোলি। সোমবার পুরো দিন তিনি টেকনাফের ট্রানজিট ক্যাম্প এবং চাকমারকুল ক্যাম্পসহ কয়েকটি ক্যাম্প পরিদর্শন করেন।  

 

বুধবার তিনি কক্সবাজার থেকে ঢাকায় ফিরে যাবেন। ঢাকায় রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর সাথে তার সাক্ষাতের কথা রয়েছে বলে ইউএনএইচসিআরের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।  

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.