রূপসা ও ভৈরব নদের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে অভিযান শীঘ্রই শুরু হচ্ছে

জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় জেলা প্রশাসক

 

দ: প্রতিবেদক

দ্রæত সময়ের মধ্যে রূপসা ও ভৈরব নদের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে অভিযান শুরু হবে বলে জানিয়েছেন খুলনা জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ হেলাল হোসেন। এসময় তিনি আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় সংশ্লিষ্ট বাহিনীকে সুনির্দিষ্ট তথ্য দিয়ে সহযোগিতার আহবান জানান।

গতকাল রবিবার সকালে সার্কিট হাউস সম্মেলনকক্ষে খুলনা জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির জানুয়ারি মাসের সভায় সভাপতির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

জেলা প্রশাসক আরও বলেন, প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান জোরদার করায় মাদক সংশ্লিষ্ট মামলার সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। খুলনা বিআরটিএ,পাসর্পোট অফিস ও শেখ আবু নাসের হাসপাতালে দালাল ও ভোগান্তি সৃষ্টিকারীদের দৌরাত্ম নিরসনে চলমান কার্যক্রম আরো গতিশীল করা প্রয়োজন। কিশোর অপরাধ দমনে কাঠোর আইন প্রয়োগের পাশাপাশি সামাজিক মোটিভেশন অধিকতর কার্যকর বলে অভিমত প্রকাশ করেন তিনি। এসময় ধান কাটার মৌসুমে গ্রামীণ এলাকায় পারিবারিক ও গোষ্ঠীভিত্তিক দ্ব›েদ্বর ব্যাপারে সার্বক্ষণিক সচেতন থাকতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের নিদের্শনা দেন জেলা ম্যাজিস্ট্রেট।

সভায় পুলিশ বিভাগের পক্ষ থেকে জানানো হয়, খুলনা মেডিকেল কলেজের সামনে অবৈধ স্থাপনা অপসারণ ও যানজট নিরসণে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সচেতন রয়েছে। খুলনা জেলায় সদ্য যোগদান করা সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ সুজাত আহমেদ জানান, ৩৪তম বিসিএস এর মাধ্যমে জেলায় যোগদান করা ৬৪ জন মহিলা চিকিৎসক ও ৬৩ জন পুরুষ চিকিৎসকের পদায়ন সম্পন্ন হয়েছে। বায়োমেট্রিক হাজিরার মাধ্যমে হাসপাতালসমূহে সঠিক সময়ে চিকিৎসকদের উপস্থিতি নিশ্চিত করা হচ্ছে।

সভায় জানানো হয়, খুলনা জেলায় গত ডিসেম্বর মাসে চুরি ৫টি, খুন ২টি, অস্ত্র আইন ৩টি, ধর্ষণ ৩টি, নারী ও শিশু নির্যাতন ১৩টি, নারী ও শিশু পাচার ১টি, মাদকদ্রব্য ৬৬টি এবং অন্যান্য আইনে ৫৯টি সহ মোট ১৫২টি মামলা দায়ের হয়েছে। জেলা অধিক্ষেত্রে নভেম্বর ২০১৯ মাসে এ সংখ্যা ছিল ১৯১টি। খুলনা জেলায় গত মাসের তুলনায় ডিসেম্বর মাসে ৩৯টি মামলা হ্রাস পেয়েছে।

খুলনা মহানগরীতে গত ডিসেম্বর মাসে চুরি ৭টি, দ্রæত বিচার ১টি, ধর্ষণ ৬টি, নারী ও শিশু নির্যাতন ৫টি, নারী ও শিশু পাচার ১টি, মাদকদ্রব্য ৯৮টি এবং অন্যান্য আইনে ২৮টি সহ মোট ১৪৬টি মামলা দায়ের হয়েছে। খুলনা মহানগরী অধিক্ষেত্রে গত নভেম্বর মাসে এ সংখ্যা ছিল ১৫৩টি। খুলনা মহানগরীতে গত মাসের তুলনায় সাতটি মামলা হ্রাস পেয়েছে।

সভায় জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ, পুলিশ সুপার এসএম শফিউল্লাহ, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ ইউসুপ আলী, উপপুলিশ কমিশনার মোঃ এহসান শাহ, খুলনা পেসক্লাবের সভাপতি এসএম নজরুল ইসলাম, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সরকারি কর্মকর্তা, মুক্তিযোদ্ধা, গণমাধ্যমকর্মীসহ কমিটির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.