রাঙামাটিতে ইউপিডিএফ কর্মীকে গুলি করে হত্যা

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
রাঙামাটির লংগদু উপজেলায় এক ব্যক্তিকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে; যাকে ইউপিডিএফ কর্মী বলে দাবি করা হচ্ছে। ইউপিডিএফ এ ঘটনার জন্য জনসংহতি সমিতিকে (এমএন লারমা) দায়ী করেছে। তবে তারা অভিযোগ অস্বীকার করেছে।
লংগদু থানার ওসি রঞ্জন কুমার সামন্ত বলেন, মঙ্গলবার বেলা ১টার দিকে ভুঁইয়াছড়া এলাকায় তাকে গুলি করে হত্যা করা হয় বলে পুলিশ জানতে পেরেছে। নিহত পবিত্র চাকমা (৪০) প্রসীত খীসার নেতৃত্বাধীন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের (ইউপিডিএফ) একজন সংগঠক বলে নেতাকর্মীরা জানিয়েছেন।
রাঙামাটি ইউপিডিএফের সংগঠক সচল চাকমা বলেন, বেলা ১টার দিকে পবিত্র চাকমা ও তাদের অন্য একজন কর্মী সাংগঠনিক কাজে ভুঁইয়াছড়ায় যান। এ সময় মহালছড়ির মুবাছড়ি থেকে ১০-১২ জন সশস্ত্র লোক এসে তাদের ওপর অতর্কিতে গুলি চালায়। পবিত্র চাকমা ঘটনাস্থলে নিহত হন। তবে অন্যজন অক্ষত অবস্থায় নিরাপদ স্থানে সরে যেতে সক্ষম হন। সচল এ হত্যাকাণ্ডের জন্য জনসংহতি সমিতিকে (এমএন লারমা) দায়ী করেছেন।
তিনি বলেন, একটি কায়েমি স্বার্থান্বেষী মহলের ব্লু-প্রিন্ট অনুযায়ী জুম্ম জাতিকে ধ্বংস করতে জনসংহতি সমিতি (এমএন লারমা) তাকে খুন করেছে। আমি অবিলম্বে খুনি গ্রেপ্তারসহ কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহŸান জানাচ্ছি।
এদিকে এ বিষয়ে জনসংহতি সমিতির (এমএন লারমা) লংগদু উপজেলা সভাপতি অলঙ্গ চাকমা বলেন, এ সম্পর্কে আমি কিছুই শুনতে পাইনি। চাঁদার টাকা ভাগাভাগি নিয়ে ইউপিডিএফের মধ্যে অনেক সমস্যা রয়েছে। তারাই তাদের কর্মীকে হত্যা করতে পারে। এতে আমরা জড়িত নই। তাদের অভ্যন্তরীণ বিরোধের জের আমাদের ওপর চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে তারা। এ বিষয়ে পুলিশ বিস্তারিত বলতে পারেনি।
ওসি রঞ্জন কুমার বলেন, আমরা জানতে পেরেছি কে বা কারা যেন পবিত্র চাকমা নামের একজনকে গুলি করে হত্যা করেছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে যাচ্ছে। বিস্তারিত পরে বলতে পারব। তবে প্রাথমিক তথ্যে জেনেছি, নিহত পবিত্র চাকমা ইউপিডিএফের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.