মোংলায় বিদেশী টাগবোটের ধাক্কায় ডুবে গেছে লাইটার জাহাজ

মোংলা প্রতিনিধি

মোংলা বন্দরে বিদেশী টাগবোঢের ধাক্কায় দুমড়ে মুচড়ে গেছে এমভি তাইফা-২ নামের দেশীয় একটি লাইটার জাহাজ। এ লাইটার জাহাজটির সামনের অংশে ফাঁটল সৃস্টি হয়েছে। ফলে লাইটারটি ডুবে যাওয়াসহ বড় ধরনের দূর্ঘটনার  আশংকা রয়েছে। গত বুধবার রাতে ওই দূর্ঘটনার পর থেকে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় ক্ষতিগ্রস্থ লাইটার জাহাজটি সুন্দরবন সংলগ্ন পশুর চ্যানেলের ঢাংমারী এলাকায় অবস্থান করছে।

ক্ষতিগ্রস্থ লাইটার এমভি তাইফা-২ এর মাস্টার মাকছেদুর রহমান জানান, গত বুধবার মেসার্স ইশান ইমরান নেভিগেশনের মালিকানাধীন এ লাইটার জাহাজটি যশোর নওয়াপড়া থেকে মোংলা বন্দরের বহিঃনোঙ্গর হারবাড়িয়ার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। স্রোতের গতি অনুকুলে না থাকায় এদিন বিকালে লাইটারটি মোংলা বন্দরের পশুর চ্যানেলের পশ্চিম পাশে সুন্দরবন সংলগ্ন নদীতে নোঙ্গর এবং যাত্রা বিরতি করে।

পরে রাত ১১ টার দিকে স্রোতের অনুকুলে চালিয়ে আসা বিদেশী টাগবোট এমভি কোস্টাল-২ বেপরোয়া গতিতে নোঙ্গরে থাকা দেশীয় লাইটার এমভি তাইফা-২ এর উপরে আছড়ে পড়ে এবং মুখোমুখি আঘাত হানে। এতে লাইটার জাহাজটির দুটি নোঙ্গর চেইন সহ ছিড়ে নদীতে পড়ে যায়। এ ছাড়া সামনের অংশ দুমড়ে মুচড়ে শো-প্লেট ফাঁটলের সৃস্টি হয়। আকস্মিক এ দূর্ঘটনার সময় ঘুমিয়ে থাকা লাইটারটির নাবিকরা ছুটাছুটি করতে গিয়ে কমবেশি আহত হয়েছেন।

মোংলা লাইটার শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি রেজাউল করিম জানান, এ দূর্ঘটনার বিষয় গতকাল শুক্রবার খুলনা জেলার দাকোপ থানায় একটি সাধরণ ডায়রী করা হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ দেশীয় ওই লাইটারটি মোংলা বন্দরের বহিঃনোঙ্গর হারবাড়িয়ায় অবস্থানরত অপর একটি বিদেশী বানিজ্যিক জাহাজ থেকে জিপসাম বোঝাই করার কথা ছিল। ফাঁটল হওয়া লাইটার জাহাজটি নোঙ্গর বিহীন ঝুকিপূর্ন অবস্থায় বর্তমানে পশুর নদীর সুন্দরবন সংলগ্ন ঢাংমারী এলাকায় অবস্থান করছে। এ দুর্ঘটনায় দেশীয় লাইটারটির প্রায় ১০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন মোংলা লাইটার শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মামুন হাওলাদার বাদশা। তিনি আরও জানান, ওই ঘটনায় লাইটার মাস্টার সহ ৫ নাবিক গুরুত্বর জখম হয়েছেন। আহতদের এখনও চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.