February 25, 2024
আঞ্চলিক

মোংলায় ‘আত্মঘাতি ড্রেজার’ দিয়ে বালু উত্তোলন ও জনদুর্ভোগ সৃষ্টি

জনরোষের মুখে ড্রেজার মালিকসহ আটক ২

মোংলা প্রতিনিধি

সরকারি পুকুরে আত্মঘাতি ড্রেজার  বসিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করায় ড্রেজার মালিকসহ ২ জন কে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে মোংলা পোর্ট পৌর সভার মাছমারা পানি প্রকল্পের পুকুর থেকে তাদের আটক করা হয়।

মোংলা থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক শেখ আকরাম উদ্দিন জানান, স্থানীয় একটি চক্র পৌর সভার অধিনাস্থ পানির প্রকল্পের পুকুরে স্যালোমেশিন চালিত আত্মঘাতি নামক ভাসমান ড্রেজার ব্যবহার করে বালি উত্তোলন করে আসছিল। এতে পুকুরের তল দেশে বড় গুহা তৈরি সহ পানি দূষন হতে থাকে। একদিকে পৌর সভার বাসিন্দাদের মধ্যে এ পানি সরবরাহ অপরদিকে অবাঁধে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন করে আসছিল ওই চক্রটি। এছাড়া চলাচলকারী রাস্তার ওপর দিয়ে পাইপলাইনের মাধ্যমে এ বালু আশপাশে জমা রেখে বিক্রি করা হচ্ছিল।

অবৈধভাবে এ বালু উত্তোলন এবং বিভিন্ন স্থানে জমাট করে বিক্রি করার কারনে পানির প্রকল্প সংলগ্ন জনবসতি এলাকায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। এমনকি এতে চলাচলকারী রাস্তাও পথচারীদের যাতায়াত এবং যানবাহন চলাচলে অনুপোযোগী হয়ে ওঠে। আর এতে জনমনে তীব্র ক্ষোভের সৃস্টি হয়। এক পর্যায় জনরোষের মুখে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পুলিশ প্রকল্পের পুকুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে আত্মঘাতি ড্রেজার মালিক হালিম এলাহী খোকন (৪৬) ও তার ভাই কামরুল ইসলাম (৩৮)কে আটক করে। আটক দু’জনকে বুধবার দুপুরে ৫৪ ধারায় আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে বলে পুলিশ জানায়।

অবৈধ ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন প্রসঙ্গে মোংলা উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ আবু তাহের হাওলাদার তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, পানির প্রকল্পের পুকুরের ভেতর দুটি আত্মঘাতি ড্রেজার ব্যবহার করে তিন সপ্তাহের বেশি সময় ধরে বালু উত্তোলন করা হচ্ছিল। এতে একদিকে ড্রেজারের ব্যবহৃত তেল-মবিল পানিতে পড়ে মিশ্রন ও দুষন সৃস্টি হয়। অপরদিকে আশপাশের রাস্তা ঘাট তলিয়ে যায় এবং ড্রেজার পাইপের বালু ও পানিতে জনবসতি এলাকায় স্থায়ী জলাবদ্ধতাসহ জনদুর্ভোগ চরমে পৌছায়।

 

 

 

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *