মনসুর-মোকাব্বির শপথ নিলে ব্যবস্থা : মন্টু

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে সুলতান মো. মনসুর ও মোকাব্বির খান সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছে গণফোরাম।
দলের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু রবিবার ঢাকা মতিঝিলে গণফোরামের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সাংবাদিকদের বলেন, তারা (সুলতান মনসুর ও মোকাব্বির খান) গেলে অবশ্যই আমরা তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেব। দলীয় সিদ্ধান্ত ও আইনগত সিদ্ধান্ত যা নেওয়া দরকার, সেগুলো আমরা নেব। যারা যাচ্ছে তাদের মাথা খারাপ না হলে, যেখানে মূল দল বলছে, না যাওয়ার কথা। সেখানে দলের পরিপন্থি হয়ে এই কাজ করবে, এটা গ্রহণযোগ্য না।
গণফোরামের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সুলতান মনসুর ও মোকাব্বির খান একদিন আগেই স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীকে চিঠি দিয়ে বলেছেন, তারা সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিতে চান। একাদশ সংসদ নির্বাচনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী হয়ে গণফোরাম থেকে কেবল সুলতান মনসুর ও মোকাব্বিরই নির্বাচিত হয়েছিলেন।
মৌলভীবাজার-২ আসনে সুলতান মনসুর জোটতভাবে বিএনপির ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে, সিলেট-২ আসনে মোকাব্বির দলীয় প্রতীক উদীয়মান সূর্য নিয়ে বিজয়ী হন। এই নির্বাচনে বিএনপি জেতে ছয়টি আসনে। ভোট ডাকাতির অভিযোগ তুলে বিএনপি, গণফোরামসহ তাদের জোট সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেও সুলতান মনসুর ও মোকাব্বির অন্য পথে হাঁটছেন। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকি দিলেও সেটা কী ধরনের, তা স্পষ্ট করেননি গণফোরাম সাধারণ সম্পাদক।
মন্টু বলেন, আমাদের দলীয় সিদ্ধান্ত হচ্ছে সংসদে না যাওয়া। এটাতে দ্বিমতের কোনো অবকাশ নেই। যারা এ সব করছেন, তারা নিজের ব্যক্তিগত উদ্যোগে করছেন, এটা দলীয় সিদ্ধান্ত না। আমরা স্পষ্ট করে বলতে চাই, জনগণের সাথে আমরা প্রতারণা করব ন্,া জনগণ যে আস্থা আমাদের উপর রেখেছেন, সেই আস্থা আমরা খেয়ানত করব না।
ডাকসুর সাবেক ভিপি, আওয়ামী লীগের এক সময়ের সাংগঠনিক সম্পাদক সুলতান ২০০৭ সালে জরুরি অবস্থার মধ্যে সংস্কারপস্থি হিসেবে চিহ্নিত হয়ে দলে অপাঙক্তেয় হওয়ার পর কামাল হোসেনের সঙ্গে ভেড়েন। ভোটে বিজয়ী হওয়ার পর শপথ নেওয়ার ইঙ্গিত দিয়ে তিনি দাবি করেন, তিনি আওয়ামী লীগ ছেড়ে অন্য কোনো দলে যোগ দেননি।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.