ব্যয় কমাতে বিদেশ সফরে লাগাম

যদি বিশেষ প্রয়োজন হয় তাহলে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বিদেশ যাবেন, অন্যথায় কেউ বিদেশ যেতে পারবে না বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

বুধবার (১১ মে) দুপুরে ভার্চ্যুয়ালি অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

ব্যয় কমানোর উদ্যোগ নেওয়ার পর সরকারি কর্মকর্তাদের অহেতুক বিদেশ সফর বেড়ে গেছে কিনা জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, আমরা এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছি। যেগুলো আপনারা দেখছেন এগুলো আগের অনুমোদন নেওয়া। প্রধানমন্ত্রী পরিষ্কারভাবে বলে দিয়েছেন এখন থেকে বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া বিদেশ সফর করা যাবে না। যদি কোনো বিশেষ প্রয়োজন হয় তাহলে তারা যাবেন, অন্যথায় কেউ যাবেন না। এটা কমানো হবে।

প্রকল্প বিষয়ে তিনি বলেন, যে সব প্রকল্প এখন না করে ছয় মাস পর করলে দেশের সামষ্টিক অর্থনীতি, জিডিপিতে ক্ষতি হবে না আমরা সেগুলো বাতিল না করে সময় পিছিয়েছি।

জিডিপির হিসাব নিয়ে অর্থনীতিবিদদের সংশয় প্রসঙ্গে মুস্তফা কামাল বলেন, আমরা যেভাবে জিডিপির হিসাব করি একইভাবে হিসাবটি করছি। আমরা কোনো কোম্পানি যুক্ত করিনি, যেভাবে হিসাব করতাম সেখানেও পরিবর্তন আনিনি। আমি মনে করি আমরা ঠিক আছি। আমরা যে তথ্য দিয়েছি সেগুলো দেশের মানুষের জন্য। আমরা ভয় পাই না, আমরা চাই আপনারা পরামর্শ দেবেন।

তিনি বলেন, এ পর্যন্ত আমরা যা বলেছি আইএমএফ-ওয়ার্ল্ড ব্যাংকসহ কেউ আপত্তি করেনি। তারা আমাদের সঙ্গে একমত, সেটা দেখলেই বুঝা যায়। চারদিকে তাকালেই বুঝতে পারবেন দেশের অর্থনীতি কতোটা শক্তিশালী ও বেগবান।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.