ব্যক্তিস্বার্থের ঊর্ধ্বে থাকার শপথ নবনির্বাচিত সংসদ সদস্যদের

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
আইন মেনে ব্যক্তিস্বার্থের ঊর্ধ্বে থেকে দেশের আইনসভার সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালনের শপথ নিয়েছেন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাচিত সাংসদরা। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার পর জাতীয় সংসদের শপথ কক্ষে এই শপথ অনুষ্ঠান শুরে হয়। চার ভাগে মোট ২৮৯ জন এদিন সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেন। বিএনপি ও তাদের জোট ঐক্যফ্রন্টের কেউ শপথ নেননি।
শুর“তেই দশম সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী একাদশ সংসদের এমপি হিসেবে নিজের শপথ নেন। এবারের নির্বাচনেও রংপুর-৬ আসন থেকে নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। স্পিকার শপথ বাক্য পাঠ করার পর প্রধানমন্ত্রী দাঁড়িয়ে উঠে হাত তালি দেন। পরে শিরীন শারমিন শপথপত্রে সই করেন। পরে তিনি অন্যদের শপথ পড়ান। প্রথমে সংখ্যগরিষ্ঠ দল আওয়ামী লীগ এবং তাদের শরিক দলের কয়েকজন শপথ নেন।
একাদশ সংসদের এমপিরা নিজ নিজ নাম উচ্চরণ করে স্পিকারের সঙ্গে পড়তে থাকেন- ‘সশ্রদ্ধচিত্তে শপথ (বা দৃঢ়ভাবে ঘোষণা) করিতেছি যে, আমি যে কর্তব্যভার গ্রহণ করিতে যাইতেছি, তাহা আইন-অনুযায়ী ও বিশ্বড়ম্বতার সহিত পালন করিব; আমি বাংলাদেশের প্রতি অকৃত্রিম বিশ্বাস ও আনুগত্য পোষণ করিব; এবং সংসদ-সদস্যরূপে আমার কর্তব্য পালনকে ব্যক্তিগতস্বার্থের দ্বারা প্রভাবিত হইতে দেব না।’
এরপর সবাই শপথপত্রে নিজেদের আসনের নাম লিখে সই করেন। শপথ অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সংসদ সচিব জাফর আহমেদ খান। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এমপি হিসেবে শপথ নেওয়ার পর তার হাতে শুভেচ্ছার ফুল তুলে দেন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী।
শপথ অনুষ্ঠানে প্রথম সারিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডান পাশে ছিলেন আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, মতিয়া চৌধুরী, আবুল হাসান মাহমুদ আলী ও খন্দকার মোশাররফ হোসেন। আর বাঁ পাশে ছিলেন সাজেদা চৌধুরী, শেখ সেলিম, ওবায়দুল কাদের, মোহাম্মদ নাসিম, আব্দুর রাজ্জাক। নাজমুল হাসান পাপনের পাশে ছিলেন নতুন দুই সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মর্তুজা ও শেখ তন্ময়।
প্রথম ভাগেই ২৫৫ জন নবনির্বাচিত সাংসদ শপথ পাঠ করেন, যাদের মধ্যে বিকল্পধারা বাংলাদেশের মাহি বি চৌধুরী ও জাসদের (আম্বিয়া) মইনুদ্দিন খান বাদলও ছিলেন। দ্বিতীয় দফায় শপথ নেন আওয়ামী লীগের শরিক চৌদ্দ দল ও মহাজোটের নয়জন এবং তিনজন স্বতন্ত্র এমপি।
ওয়ার্কার্স পার্টির রাশেদ খান মেনন, ফজলে হোসেন বাদশা, জাসদের হাসানুল হক ইনু, শিরিন আক্তার, জেপির আনোয়ার হোসেন মঞ্জু, তরিকত ফেডারেশনের নজিবুল বাশার মাইজভান্ডারি, বিকল্পধারার আবদুল মান্নান এবং স্বতন্ত্র নিক্সন চৌধুরী ছিলেন তাদের মধ্যে। এরপর দশম সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদকে সঙ্গে নিয়ে শপথ নেন জাতীয় পার্টির নবনির্বাচিত ২১ জন সাংসদ।
গত ৩০ ডিসেম্বর ভোটে নির্বাচিত ২৯৮ জনের মধ্যে ঐক্যফ্রন্টের সাতজন শপথ নেবেন না বলে ঘোষণা দিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বিকালে স্পিকারের কক্ষে আলাদাভাবে শপথ নেবেন বলে সংসদ সচিবালয় থেকে জানানো হয়েছিল, কিন্তু ‘শারীরিক অসুস্থতার কারণে’ তিনিও আসেননি।
পার্টির কো চেয়ারম্যান জি এম কাদের পরে সাংবাদিকদের বলেন, তিন চার দিনের মধ্যে তার শপথ নেওয়ার কথা রয়েছে। তা না হলে বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যে শপথ নেবেন আমাদের চেয়ারম্যান। এছাড়া বিদেশে চিকিৎসাধীন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম শপথ নেওয়ার জন্য সময় চেয়ে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীকে চিঠি দিয়েছেন। স্পিকার বলেন, উনি দেশে ফিরে আসার পর শপথ নিতে চান। এমনিতেই ৯০ দিন সময় উনি পাবেন।
শপথ অনুষ্ঠান শেষে সংসদের ভিআইপি ক্যাফেটারিয়ায় নতুন এমপিদের জন্য ছিল চা-চক্রের আয়োজন। আওয়ামী লীগের মনোনয়নে এমপি নির্বাচিত হওয়া ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মুর্তজা শপথ নেওয়ার পর সাংবাদিকদের বলেন, খেলা ও রাজনীতি দুটোই একসাথে চালিয়ে যাব। দুটোতেই ভালো করার চেষ্টা করব।
স্বতন্ত্র প্রার্থী মুজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন বলেন, এলাকাকে সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত করতে সবাই মিলে কাজ করব। এলাকার উন্নয়নের অসমাপ্ত কাজগুলো সম্পন্ন করব।
দেশের ৩০০ সংসদীয় আসনের মধ্যে ২৯৯টিতে গত রোববার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ হয়, গোলযোগের কারণে একটি আসন স্থগিত রেখে সেই রাতেই ২৯৮টি আসনের ফল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। এর মধ্যে ২৫৭টি আসনে জয় পেয়েছে  ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নৌকার প্রার্থীরা। আর জোটগতভাবে তাদের আসন সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৮৮টি। এই নিরঙ্কুশ জয়ে টানা তৃতীয়বারের মত সরকার গঠন করতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ। এর বিপরীতে বিএনপিকে নিয়ে গঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ভরাডুবি হয়েছে। তাদের ধানের শীষের প্রার্থীরা মাত্র সাতটি আসনে জয়ী হতে পেরেছে।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *