বিভিন্ন স্থানে বাংলা নববর্ষ উদযাপিত

 

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক

কেশবপুর (যশোর) : কেশবপুর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মিজানূর রহমানের সভাপতিত্বে বাংলা নববর্ষ ১৪২৬ উপলক্ষে ১ বৈশাখ শিশু একাডেমীর সূচনা অনুষ্ঠান, মঙ্গলপ্রদীপ প্রজ্জ্বলন, মঙ্গল শোভাযাত্রা, শিশু আনন্দমেলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

অনুষ্ঠানে নব-নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা কাজী রফিকুল ইসলাম, জেলা পরিষদের সদস্য হাসান সাদেক, উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি সাঈদুর রহমান সাঈদ, ভাইস চেয়ারম্যান নাসিমা সাদেক, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ রানা, নব-নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান পলাশ মল্লিক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

অপরদিকে চারুপীঠ আর্ট স্কুলের অনুষ্ঠানে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন স্কুলের চেয়ারম্যান মদন সাহা অপু। পরিচালক সাংবাদিক উৎপল দে-র পরিচালনায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান এইচ এম আমির হোসেন, পৌর মেয়র রফিকুল ইসলাম, অধ্যাপক মশিউর রহমান প্রমুখ। বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী কেশবপুর উপজেলা শাখার সভাপতি অনুপম মোদকের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক নিমাই চাঁদ নন্দনের পরিচালনায় শহরের রক্তবরবী উন্মুক্ত মঞ্চে অনুরূপ কর্মসূচী পালিত হয়েছে।

ফকিরহাট (বাগেরহাট) : ফকিরহাট শেখ হেলাল উদ্দীন ডিগ্রি কলেজে বাঙালির ঐতিহ্য বাংলা  নববর্ষ ১৪২৬ আড়ম্বরপূর্ণ ভাবে পালিত হলো। সকাল নয়টায় কলেজের অধ্যক্ষ বটু গোপাল দাসের নেতৃত্বে মঙ্গল শোভাযাত্রা কলেজ ক্যম্পাস ও পার্শবর্তী গৌরম্ভা বাজার প্রদক্ষিণ করে। শোভাযাত্রা শেষে কলেজ অডিটোরিয়ামে নববর্ষ উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

নববর্ষ উদ্যাপন কমিটির আহŸায়ক প্রভাষক মাহাবুবা ফিরদৌসির উপস্থাপনায় এবং অধ্যক্ষ বটু গোপাল দাসের সভাপতিত্বে নববর্ষ ও অসা¤প্রদায়িক বাঙালির চেতনা তুলে ধরে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন কলেজ গভর্ণিং বডির সদস্য গৌরম্ভা ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিন গাজী, শুভদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ সহিদুল ইসলাম, স ম আব্দুর রব, মোঃ ফারুকুল ইসলাম,  সৈয়দ মহম্মদ আলী, কলেজের সহকারী অধ্যাপক মোঃ হোসাইন ছায়েদীন, দীন মহম্মদ মোল­া,  শিক্ষক প্রতিনিধি মোঃ সিরাজুল ইসলাম, উৎপল কুমার দাস, দিপালী রানী বিশ্বাস, প্রভাষক শেখ শামীম ইসলাম, সালমা খাতুন, ইউপি সদস্য প্রদীশ অধিকারী, শিক্ষার্থী রাইসা খাতুন, আয়েশা বেগম, রহিম গাজী, অর্পিতা  প্রমুখ। আলোচনা সভা শেষে সকল শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা এক সাথে বাঙ্গালীর ঐতিহ্যবাহী পান্থা ভাত খেয়ে আনন্দ উল­াসের মধ্যে দিয়ে দিনের কর্মসূচী শেষ করেন।

মুকসুদপুর (গোপালগঞ্জ) : নানা আয়োজনে পহেলা বৈশাখ উদযাপন করা হয়েছে। এদিন সকাল সকাল সাড়ে ৮টায় বৈশাখী শোভাযাত্রা বের করেছে মুকসুদপুর উপজেলা প্রশাসন, বিভিন্ন সংগঠন ও বিভিন্ন বিদ্যালয়। শোভাযাত্রাটি উপজেলা পরিষদ থেকে শুরু হয়ে মুকসুদপুর সদর বাজারের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা চত্বরে এসে শোভাযাত্রাটি শেষ হয়। শোভাযাত্রায় উপজেলা প্রশাসন বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠন, স্কুল-কলেজসহ বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান অংশ নেয়। উপজেলা প্রশাসন, এসজে উচ্চ বিদ্যালয়, পাইলট বালক উচ্চ বিদ্যালয়, ১নং টেংরাখোলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বিদ্যালয় মঙ্গল শোভাযাত্রা অংশ নেয়। এসময় শোভাযাত্রা অংশগ্রহণ করে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কাবির মিয়া, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র এ্যাড. আতিকুর রহমান মিয়া, উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাসলিমা আলী, মুকসুদপুর থানার ওসি তদন্ত ইদ্রিস আলী, উপজেলা যুব উন্নয়ন অফিসার সাইদুর রহমান, কবি মাহফুজ রিপনসহ উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, বিভিন্নি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও শিক্ষার্থী। এছাড়াও মুকসুদপুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বৈশাখি মেলার আয়োজন ছিল চোখে পড়ার মতো।

সকাল সোয়া ৮টায় উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে উপজেলা পরিষদ পুকুর পাড়ে বর্ষবরণ অনুষ্ঠান হয়। এদিন স্ব-স্ব প্রতিষ্ঠানের সুবিধামত সময়ে উন্নত মানের ঐতিহ্যবাহী বাঙালী খাবার পরিবেশন ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে (টেনিস গ্রাউন্ডে) সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও বৈশাখী মেলার আয়োজন করা হয়। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সকাল সাড়ে ৮ টায় শিক্ষক, কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের জন্য ছিল পান্তা-ইলিশের আয়োজন। এছাড়াও উপজেলা প্রশাসন সকালে শোভাযাত্রার আগে পান্তা-ইলিশের আয়োজন করে। এছাড়াও ছিল গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য লাঠিখেলার আয়োজন।

এদিকে, সকাল ৯টায় থেকে বিকাল পর্যন্ত, পৌরসভার কমলাপুর বৈরাগির আখড়া, উজানী, বহুগ্রাম, জলিরপাড়, বাটিকামারী, বনগ্রাম বাজার, রাথৈড় বৈশাখী মেলা ও দিনব্যাপী বৈশাখী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন ছিল। এছাড়াও মুকসুদপুর উপজেলার উজানীতে ছিল চোখ ধাধানো চড়ক মেলার আয়োজন এছাড়া দাশেরহাট শিব মন্দিরে অস্ট্রোক গান শ্লোক গান। এছাড়া এদিন সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সংগঠন “মেঠোপথ” পহেলা বৈশাখ আকর্ষনীয় করতে উপজেলা পরিষদ গেট, চৌরঙ্গী মোড়সহ উপজেলা সদরের গুরুত্বপূর্ণ স্থার্নের সড়কে আল্পনা একেঁছে। বিকালে “মেঠোপথ” কার্যালয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

এ ব্যাপারে মুকসুদপুর থানার ওসি মোস্তফা কামাল পাশা জানান, পহেলা বৈশাখ নির্বিঘেœ শেষ করতে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

বটিয়াঘাটা : বিপুল উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে বটিয়াঘাটা উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে গত রবিবার বাংলা বর্ষবরণ পহেলা বৈশাখ উদযাপিত হয়েছে। কর্মসূচির মধ্যে সকাল ৮ টায় উপজেলা সদরের প্রধান প্রধান সড়ক সমূহ প্রদিক্ষন শেষে পান্থাভাত ভোজন। র‌্যালিতে ঐতিহ্যবাহী গ্রামীণ সংস্কৃতি তুলে ধরা হয়। পরে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে বেতার শিল্পী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহমেদ জিয়াউর রহমানের সংগীত পরিবেশনা দর্শক শ্রোতাদের মনোমুগ্ধ করে।

র‌্যালিতে অংশগ্রহণ করেন উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ আশরাফুল আলম খান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহমেদ জিয়াউর রহমান, অধ্যক্ষ অমিতেষ দাস সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ দেলোয়ার হোসেন, থানার ওসি মোঃ রবিউল কবির, ওসি (তদন্ত) সরদার ইব্রাহিম হোসেন সোহেল, সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ মনিরুল মামুন,কৃষি কর্মকর্তা রবিউল ইসলাম, স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ রামচন্দ্র সাহা, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নারায়ণ চন্দ্র মন্ডল, সমাজসেবা কর্মকর্তা অমিত কুমার সমাদ্দার, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা  হাবিবুর রহমান, পরিসংখ্যান কর্মকর্তা গৌতম কুমার বিশ্বাস, উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি প্রতাপ ঘোষ,সম্পাদক ইন্দ্রজিৎ টিকাদার, প্রধান শিক্ষক অনিল কুমার মন্ডল, প্রধান শিক্ষক অন্নদা শংকর রায়, সহকারি প্রধান শিক্ষিকা তৃপ্তি রানি বিশ্বাস, সাংবাদিক যথাক্রমে মোঃ মনিরুজ্জামান, এস,এম ভুট্টো মহিদুল ইসলাম শাহীন,আহসান কবির, শাহীন বিশ্বাস, বিপ্রদাস রায়, শাওন হাওলাদার, তরিকুল ইসলাম, গাজী মোঃ তরিকুল প্রমূখ।

ঝিনাইদহ : বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যে দিয়ে বাংলা নতুন বছরকে বরণ করে নিচ্ছে ঝিনাইদহবাসী। এ উপলক্ষে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে রোববার সকালে শহরের ওয়াজির আলী স্কুল এন্ড কলেজ মাঠ থেকে মঙ্গলশোভাযাত্রা বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক ঘুরে একই স্থানে এসে শেষ হয়। র‌্যালিতে ঝিনাইদহ-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই, সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য খালেদা খানম, জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ, পুলিশ সুপার মো: হাসানুজ্জামান জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌরসভার মেয়র আলহাজ সাইদুল করিম মিন্টু, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাম্মী ইসলাম,ঝিনাইদ প্রেসক্লাব সভাপতি এমরায়হান সহ নানা শ্রেণী পেশার মানুষ অংশ নেয়। জেলা শহরে অংকুর নাট্য একাডেমী,বে-সরকারী সেচ্ছাসেবী মানব কল্যাণ-সিও, শেল্টার সমাজ কল্যান সংস্থা,এইড ফাউন্ডেশন, বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন সহ বিভিন্ন সংগঠন অসংখ্য মুখোশ ও হরেক রকম পুতুল, কাগজ দিয়ে তৈরি পাখি নিয়ে শোভাযাত্রায় অংশ নেয় এছাড়াও জেলার সকল উপজেলায় পহেলা বৈশাখ পালিত হয়েছে।

এদিকে সকাল ৭টায় জেলা শহরে সিও সংস্থার অফিস থেকে অসংখ্য মুখোশ ও হরেক রকম পুতুল, শাপলা, কাঠাল, তাল পাতা ও কাগজ দিয়ে তৈরি পাখি নিয়ে সিও সংস্থার নির্বাহী পরিচালক সামছুল আলম এর নির্দেশে র‌্যালী বের হয়। র‌্যালীটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক ঘুরে শহরের ওয়াজির আলী স্কুল মাঠ থেকে জেলা প্রশাসনের আয়োজনের শোভাযাত্রায় অংশ নেয়। শোভাযাত্রায় অন্যান্যের মধ্যে অংশ নেন সিও এনজিও”র উপ-নির্বাহী পরিচালক নাসির উদ্দীন, সহকারী নির্বাহী পরিচালক তোফাজেল হোসেন, ডাউরেক্টর এডমিন মাফিদুন নেছা শিলা খাতুন, হিসাবরক্ষক বদরুল আমিন, আইটি অফিসার সোহেল পারভেজ সোহাগ,  প্রমূখ। এছাড়াও মর্নিং বেল চিল্ড্রেন একাডেমী রবিবার সকালে বাঙ্গালীর প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ পালন করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ শাহিনুর আলম লিটন এর সার্বিক তত্বাবধানে বাঙ্গালীর প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ পালন করা হয়েছে। অপরদিকে সকাল ৭টায় শেল্টার সমাজ কল্যান সংস্থার অফিস থেকে অসংখ্য মুখোশ ও হরেক রকম পুতুল, তাল পাতা ও কাগজ দিয়ে তৈরি পাখি নিয়ে শেল্টার সমাজ কল্যান সংস্থার নির্বাহী পরিচালক রোমেনা বেগম এর নেতৃত্বে শহরের ওয়াজির আলী স্কুল মাঠ থেকে জেলা প্রশাসনের আয়োজনের শোভাযাত্রায় অংশ নেয়। শোভাযাত্রায় অন্যান্যের মধ্যে অংশ নেন শেল্টার সমাজ কল্যান সংস্থার  নির্বাহী পরিচালক রোমেনা বেগম, ইয়াছিন আলী, সাবেরা বেগম ঝর্ণা প্রমূখ। র‌্যালিতে প্রদর্শণ করা হয় পেচা, বাঘের মুখোশ, গরুর গাড়ি, পালকিসহ গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য। এছাড়াও দিনভর পান্তা পরিবেশন, লাঠি খেলা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে জেলার বিভিন্ন স্থানে বাংলা বর্ষবরণ পালিত হচ্ছে।

তেরখাদা : ১৪ এপ্রিল তেরখাদা উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে প্রতি বছরের ন্যায় অধিক জাঁকজমকপূর্ণভাবে শুভ নববর্ষ ১৪২৬ উদযাপিত হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে সকাল ৯টায় শোভা যাত্রা উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে শুরু হয়ে বাজার সদর প্রদক্ষিণ শেষে পুনরায় একই স্থানে শেষ হয়। র‌্যালীতে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী নববধু সাজে সজ্জিত, ঘোড়ার গাড়ি, জাল, বরশি, পোলা সহ নানা প্রকার ঐতিহ্যবাহী ব্যবহার্য জিনিসপত্র শোভা পায়। র‌্যালী পরবর্তী অফিসার্স ক্লাবে পান্তা রুই ভোজন অনুষ্ঠিত হয়।

পরবর্তীতে উপজেলা পরিষদ চত্বরে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী গান, লাঠিখেলা, কাবাডি, অস্টক গান, লোক সংগীত, বাউল গান পরিবেশন করেন  স্থানীয় ও অতিথি শিল্পীবৃন্দ। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাংস্কৃতিকমনা নব নিযুক্ত উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ শহিদুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ লিটন আলী। পরিচালনায় ছিলেন প্রধান শিক্ষক কামারুজ্জামান। এসময় উপস্থিত ছিলেন থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ সালেকুজ্জামান, উপজেলা পরিষদের নব নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যানদ্বয় শারাফাত হোসেন মুক্তি  ও নাজমা আইয়ুব, আওয়ামীলীগ এর সাধারণ সম্পাদক কেএম আলমগীর হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক বাছিতুল হাবিব প্রিন্স, ডেপুটি কমান্ডার চৌধুরী আবুল খায়ের, চেয়ারম্যান এসএম দীন ইসলাম, অধ্যক্ষ সরদার ইসমাইল হোসেন, মিজানুর রহমান, উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি নুর মোহাম্মদ সিফাত, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম, ইখড়ি মাদ্রাসার সহ সুপার মাহাবুবুর রহমান, শেখ আনিসুল হক, কামরুজ্জামান, আলমগীর হোসেন, তরিকুল ইসলাম জিলু প্রমুখ।

খানজাহান আলী থানা : নগরীর খানজাহান আলী থানা এলাকায় বাঙ্গালীর প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ ও বাংলা নববর্ষ দিনব্যাপী জাঁকজমকপুর্ণ বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা, বৈশাখী মেলা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান.  আলোচনা সভা, দেশীয় খাবারের রকমারি উৎসব সহ বর্ণিল আয়োজনের মধ্যে দিয়ে বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, সামাজিক প্রতিষ্ঠান ও রাজনৈতিক দল বর্ষবরণ উদ্যাপন করেন।

গভঃ ল্যাবরেটরি হাই স্কুলঃ খুলনা গভঃ ল্যাবরেটরি হাই স্কুল পহেলা বৈশাখ ও বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে দিনব্যাপী জাঁকজমকপুর্ণ বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান. আলোচনা সভা, পিঠা উৎসব সহ বর্ণিল আয়োজনের মধ্যে দিয়ে বর্ষবরণ অনুষ্ঠান পালন করেন। স্কুলের প্রধান শিক্ষক(চলতি দায়িত্ব) মোসাঃ খালেদা খানম প্রতিটি অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন। কাক ডাকা সকাল থেকে শুরু হয় বর্ষবরণ অনুষ্ঠানের বিভিন্ন আয়োজন শুরু হয়। সকাল সাড়ে ৭ টায় স্কুলের প্রধান ফটক থেকে বের করা হয় স্কুলের শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহনে বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা স্কুলের প্রধান শিক্ষক (চলতি দায়িত্ব) মোসাঃ খালেদা খানমের নেতৃত্¦ে বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রাটি ফুলবাড়ীগেট গুরুত্বপুর্ণ সড়ক প্রদক্ষিষ শেষে ক্যাম্পাস ঘুরে খেলার মাঠে এসে শেষ হয়। মঙ্গল শোভাযাত্রায় দেশীয় বাদ্যযত্র, পুরানো দিনের হারিয়ে যাওয়া বিভিন্ন সংস্কৃতি তুলে ধরে প্রদশিত হয় বিভিন্ন চিত্র। সকাল সাড়ে ৯টায় সাংস্কৃতি অনুষ্ঠানে আলোচনা সভায় বক্তৃতা করন স্কুলের সহকারি প্রধান শিক্ষক(চলতি দায়িত্বে) মোঃ কবির আলম খান, মোঃ দূর্গেশ কুমার হালদার, আবু হানিফ, আবু হাসান, মোঃ আঃ লতিফ শেখ, সন্দীপ কুমার ঢালী,  মোঃ জহুরুল ইসলাম, নুরুল হুদা, অরবিন্দ হালদার, নবকুমার রায়, এস এম তৈমুর রেজা, সামছুর রহমান, প্রতিভা সাহা, সঞ্জয় কুমার প্রমুখ শিক্ষক বৃন্দ।

ফুলবাড়ী আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ঃ ফুলবাড়ী আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয় এর উদ্যোগে বাংলা নববর্ষ বরণ উপলক্ষে বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা, আলোচনা সভা সহ নানা আয়োজনের মধ্যে দিয়ে বৈশাখকে বরণ করে নেয়। বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা ও ১লা বৈশাখের তাৎপর্য তুলে ধরে আলোচনা সভা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। পহেলা বৈশাখের সকাল ১০ টায় ফুলবাড়ী আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয় বাংলা বর্ষ বরণ উপলক্ষে স্কুলের শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী এবং ম্যানিজিং কমিটির সমন্বয়ে বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা ফুলবাড়ীগেট প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে বিদ্যালয়ে এসে শেষ হয়। শোভাযাত্রায় বিভিন্ন প¬াকার্ড, দেশীয় বদ্যযন্ত্র নিয়ে শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহন করে। শোভাযাত্রা শেষে বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে আলোচনা সভায় বক্তৃতা করেন স্কুলের প্রধান শিক্ষক মাষ্টার মনিরুল ইসলাম, আলহাজ্জ মোল¬া মুজিবর রহমান(বীর মুক্তিযোদ্ধা) সহকারী প্রধান শিক্ষক চৈতন্য কুমান কুন্ডু, মোসাঃ লিপিয়া খাতুন, বিএম মনিরুজ্জামান, তন্ময় মৃধা, রঘুনাথ সরকার, লায়লা কারিশমা প্রমুখ। এ সময় স্কুলের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও শিক্ষক মন্ডলী, ছাত্র-ছাত্রী ও কর্মচারীগণ উপস্থিত ছিলেন।

খানাবাড়ী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ঃ খানাবাড়ী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে  বাংলা নববর্ষ পহেলা বৈশাখকে বরণ করেন। সকাল ৮টায় বর্ণাঢ্য মঙ্ল শোভাযাত্রা স্কুলের শিক্ষক, শিক্ষার্থী এবং ম্যানিজিং কমিটির সমন্বয়ে এক বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রাটি ফুলবাড়ীগেট প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে বিদ্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়। মঙ্গল শোভাযাত্রায় বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও কর্মচারীরা  বিভিন্ন প¬াকার্ড, দেশীয় বদ্যযন্ত্র প্রদশিত হয়। স্কুলের শিক্ষার্থীরা স্বতস্ফুর্তভাবে প্রতিটি আয়োজনে অংশগ্রহন করেন। তাদের প্রত্যেকের পরনে ছিলো নববর্ষের নতুন পোষাক মুখে হাসি। শোভাযাত্রা শেষে বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান । স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ইমলাক ঢালী সভাপতিত্বে উদ্বোধনী বক্তৃতা করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আসাদুজ্জামান। অন্যানের মধ্যে বক্তৃতা করেন, ম্যানিজিং কমিটির সদস্য বাবু তপন কুমার দত্ত, স্কুলের সহকারী শিক্ষক মোঃ জিয়াউর রহমানসহ অন্যান্্য শিক্ষকগণ  অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন স্কুলের শিক্ষিকা ডালিয়া আক্তার।

খানজাহান আলী থানা নিসচাঃ বাঙ্গালীর প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ ও বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে নিরাপদ সড়ক চাই খানজাহান আলী থানা শাখার উদ্যোগে শিরোমণিস্থ সংগঠনের নিজস্ব কার্যালয়ে দেশীয় ফল উৎসবের ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। ফল উৎসব ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন নিরাপদ সড়ক চাই কেন্দ্রীয়  কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম আজাদ হোসেন। খানজাহান আলী থানা নিসচা’র আহবায়ক মেম্বর শেখ আব্দুস সালামের সভাপতিত্বে এবং সদস্য সচিব লূৎফর রহমান লিটনের পরিচালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন কেসিসি ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ সাইফুল ইসলাম, খানজাহান আলী থানা সাংবাদিক ইউনিটির সভাপতি শেখ বদর উদ্দিন, দৈনিক নওয়াপাড়া পত্রিকার খানজাহান আলী থানা প্রতিনিধি মিয়া বদরুল আলম মনু।  বক্তৃতা করেন, মোঃ রফিকুল ইসলাম, তাবারক সরদার, মোঃ ভেমর সরদার, বিল্লাল হোসেন, আবুল কালাম আজাদ, শরীফ রফিকুল ইসলাম, ইমদাদুল ইসলাম, মুহিবুল্লাহ, আবুল হোসেন, সাগর শেখ, হুমাউন শেখ, লিমন শেখ, শাহ হাফিজুর রহমান, ফরহাদ শেখ, আতিকুর রহমান, আলমগীর হোসেন, মোঃ সুজন, নাজমুল হক, ইব্রাহিম শেখ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

দক্ষিণ গিলাতলা চির সবুজ সংঘঃ বাঙ্গালীল প্রাণের স্পন্দন বাংলা নববর্ষ পহেলা বৈশাখ উৎযাপন উপলক্ষে দক্ষিণ গিলাতলা চির সবুজ সংঘের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয় দিনব্যাপী দেশীয় খেলাধুলার সমাহারে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠান। বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন খানজাহান আলী থানা আ’লীগের সভাপতি শেখ আবিদ হোসেন। বিকালে পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন আটরা গিলাতলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ মনিরুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন জামিরা কলেজের অধ্যাক্ষ ও শিরোমণি কেডিএ আবাসিক কল্যাণ সমিতির সভাপতি মারুফুলকবির, সাধারণ সম্পাদক ফারুক হোসেন, দিশারী যুব পর্ষদের সাধারণ সম্পাদক কাজী আজাদুর রহমান হিরক, খুলনা উন্নয়ন ফোরামের মহাসবিচ রবিউল ইসলাম, খানজাহান্ আলী থানা সাংবাদিক ইউনিটির সভাপতি শেখ বদর উদ্দিন, সহ-সভাপতি মোঃ শফিউদ্দিন। চির সবুজ সংঘের সভাপতি শেখ মনিরুল ইসলামের সভাপতিত্বে এবং সাংবাদিক সাইফুল্লাহ তারেকের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে ক্লাবের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ বক্তৃতা করেন।

কলারোয়া (সাতক্ষীরা) ঃ বাঙালি সাজে বঙ্গাব্দ ১৪২৬ বাংলা বর্ষবরণে প্রাণের পহেলা বৈশাখে গা ভাসালো কলারোয়াবাসী। বাঙালির চিরন্তন ও অসাম্প্রদায়িক এ উৎসবের দিন যৌথভাবে সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলা প্রশাসন ও পাবলিক ইন্সটিটিউটের চোখধাঁধানো নানান আয়োজন ছিলো উৎসবে-আমেজে ভরপুর। রবিবার (পহেলা বৈশাখ, ১৪এপ্রিল) সকালে প্রভাতী সঙ্গীতের মধ্যদিয়ে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানের পালাক্রমে সকাল সাড়ে ৭টায় সরকারি-বেসরকারি দপ্তরে কর্মরত, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক-ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি ও সর্বস্তরের বিভিন্ন বয়সী জনতার স্বত:স্ফূর্ত অংশগ্রহনে বের হয় মঙ্গল শোভাযাত্রা। এরপর বাঙালি চিরায়ত রূপকে ফুটিয়ে তুলতে ফুটবল মাঠে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের নজরকাড়া ডিসপ্লেতে সবাই ফিরে যায় অতীত স্মৃতিতে। অংশগ্রহণকারীদের দেয়া হয় পুরষ্কারও। সেখানকার অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন কপাই সাধারণ সম্পাদক এড.শেখ কামাল রেজা। পরে সকাল পৌনে ১০টার দিকে পাবলিক ইন্সটিটিউট চত্বরে গণপান্তাভোজে শরীক হন উপস্থিতিরা। শিশু থেকে শুরু করে বিভিন্ন বয়সী নারী-পুরুষদের অপরূপ সাজের পাশাপাশি গ্রামীণ বাঙালি ঐতিহ্যের ছবি সম্বলিত ফেস্টুন-প্লাকার্ড সবার নজর কাড়ে। ফুটবল মাঠের মিলনমেলায় আনন্দে গা ভাসায় সকলে। বাংলা নববর্ষ উদযাপনের এসকল আয়োজনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- সাবেক সংসদ বিএম নজরুল ইসলাম, নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লাল্টু, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরএম সেলিম শাহনেওয়াজ, সহকারী কমিশনার (ভূমি) আক্তার হোসেন, থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মাদ মনিরুজ্জামান, কলারোয়া সরকারি কলেজের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ প্রফেসর আবু নসর, প্রফেসর আবু বক্কর ছিদ্দিকী, উপজেলা আ.লীগের সাবেক আহবায়ক সাজেদুর রহমান খান চৌধুরী মজনু, অধ্যক্ষ মাওলানা আইয়ুব আলী, অধ্যক্ষ আব্দুল বারিক, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ অধ্যাপক এম ফারুক, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সম মোরশেদ আলী, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান অধ্যাপক এমএ কালাম, পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান বুলবুল, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার গোলাম মোস্তফা, বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ আলী গাজী, আবুল হোসেন, পাবলিক ইন্সটিটিউটের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন, উপজেলা কৃষি অফিসার মহাসীন আলী, সমাজসেবা অফিসার শেখ ফারুক হোসেন, সমবায় অফিসার নওশের আলী, মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রধান শিক্ষক আমানুল্লাহ আমান, সরকারি পাইলট হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রব, গার্লস হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক বদরুজ্জামান বিপ্লব, উপজেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রবিউল আলম মল্লিক, শিক্ষক শেখ শাহাজাহান আলী শাহীন প্রমুখ। সোমবার দিনব্যাপী উপজেলার কয়লা হাইস্কুল মাঠে এবং যুগিখালী ও বামনখালীতে ৭দিন ব্যাপী বৈশাখী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.