বিএনপির আন্দোলনের সামর্থ্য নিয়ে প্রশ্ন তুললেন ওবায়দুল

 

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক

বিএনপির আন্দোলনের হুমকির জবাবে ফের দলটির সামর্থ্য নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। দলীয় নেত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে আন্দোলন বেগবান করা হবে বলে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেছিলেন।

শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে এলে ওবায়দুল কাদেরের কাছে তার প্রতিক্রিয়া জানতে চান সাংবাদিকরা। তিনি বলেন, আন্দোলন করে তারা খালেদা জিয়াকে মুক্ত করুক। তারা আন্দোলনের কথা তো বারবারই বলে বেড়াচ্ছে। এখনও পুরানো কথার পুনরাবৃত্তি শুনতে পাচ্ছি। তাদের যদি সেই সক্ষমতা থাকে, সাহস থাকে, আন্দোলন করে দেখাক। ১০ বছরে তো ১০ মিনিটের একটা আন্দোলনও দেখলাম না।

বিএনপির ‘গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার’র আন্দোলন প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, তাদের গণতন্ত্র স্ব-বিরোধিতায় পরিপূর্ণ। আন্দোলন কী করবে? মির্জা ফখরুল নিজেই নির্বাচনে জয়ী হয়ে সংসদে যোগ দিলেন না, অথচ সেই আসনে পুনর্র্নিবাচনে প্রার্থী দিলেন, এটা কোন গণতন্ত্র?

তাদের পাঁচজন সংসদে যোগ দিলেন, সংরক্ষিত মহিলা আসনে নির্বাচিত হলেন শপথ নিলেন, কিন্তু দলের মহাসচিব সংসদে যোগ দিলেন না, এই দ্বৈত নীতি তাদের দলে। এই গণতন্ত্র হাস্যকর।

বিএনপির জাতীয় কাউন্সিলের প্রস্তুতির বিষয়ে কাদের বলেন, বিএনপির যেভাবে জন্ম, বিএনপির যেভাবে বিকাশ, বিএনপি তাদের গঠনতন্ত্র থেকে ৭ ধারা বাদ দিয়ে প্রমাণ করেছে, তারা আত্মস্বীকৃত দুর্নীতিবাজ দল। তারা এই ৭ ধারা থেকে সরে যাবে, এমন আশা করা দুঃস্বপ্নের নামান্তর।

ধানমণ্ডির আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলনে কাদেরের সঙ্গে ছিলেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, এ কে এম এনামুল হক শামীম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, ত্রাণ ও দুর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, উপ দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, উপ প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.