বাগেরহাটে ১ লাখ ৬০ হাজার শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে

 

বাগেরহাট প্রতিনিধি

‘ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ান, শিশুমৃত্যু ঝুঁকি কমান’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে বাগেরহাট জেলার ৯টি উপজেয়ায় ১ লাখ ৬০ হাজার ৫৮০ জন শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি শিশুদের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানোর মধ্যে দিয়ে ক্যাম্পেইনের শুরু হবে। জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইনের আওতায় ২য় রাউন্ডে জেলায় ৬-১১ মাস বয়সি শিশুদের নীল রঙের এবং ১ বছর থেকে ৫৯ মাস বয়সী শিশুদের লাল রঙের ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। জেলার ১ হাজার ৯০০ কেন্দ্রে এ ক্যাপসুল খাওয়াতে সরকারি- বেসরকারি ভাবে কাজ করবে ৩ হাজার ৮০০ স্বাস্থ্যকর্মী ও স্বেচ্ছাসেবী।

জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন উপলেক্ষ বৃহস্পতিবার জেলা সিভিল সার্জনের সভা কক্ষে জেলা পর্যায়ে সাংবাদিক ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। কর্মশালা সভায় সভাপতির বক্তব্য প্রদান করেন জেলা সিভিল সার্জন ডা. জিকে শামসুজ্জামান।

ডা. শামসুজ্জামান বলেন, উন্নতমানের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। যা শিশুদের সুস্থ্যভাবে বেড়ে উঠতে সহযোগিতা করবে। জেলায় সর্বমোট ১ হাজার ৯০০টি কেন্দ্রের মাধ্যমে এই কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে। ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী ১৭ হাজার ৯৭৬ শিশুকে এবং ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী শিশুকে ১ লাখ ৪২ হাজার ৬০৪ শিশুকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। ভিটামিন এ ক্যাপসুলের মান উন্নত এবং পরীক্ষিত এতে কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হবে না। ক্যাম্পেইন নিয়ে কোনো অপপ্রচার চালানোর সুযোগ নেই। স্বেচ্ছাসেবীরা কীভাবে শিশুদের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়াবে, ভিটামিনের অভাবে কি রোগ হতে পারে সে বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরা হয়।

বাগেরহাটের ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. পুলক দেবনাথ জানান,এ বারের প্রতিপাদ্য বিষয় হলো ‘ভিটামিন এ খাওয়ান শিশুমৃত্যুর ঝুঁকি কমান’। শিশুদের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়াতে সকল প্রস্ততি সম্পন্ন হয়েছে। অত্যন্ত উচ্চমানের এবং পরীক্ষিত ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডা.প্রদীপ কুমার বকসী, জেলা ইপিআই সুপারিনটেনডেন্ট এবিএম আ. সালাম।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.