ফের সিঙ্গাপুর যাচ্ছেন এরশাদ : জাপা নেতা

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
রক্তে হিমোগ্লোবিনের সমস্যা নিয়ে ভুগতে থাকা জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ এবার যকৃতের জটিলতার চিকিৎসার জন্য আবার সিঙ্গাপুরে যাচ্ছেন। জাতীয় পার্টির যুগ্ম দপ্তর সম্পাদক এম এ রাজ্জাক খান গতকাল সোমবার এতথ্য জানিয়েছেন।
তিনি বলেন, স্যার এখনও অসুস্থ। তার লিভারের সমস্যার কিছুটা ইমপ্রুভ হলেও কোনো ঝুঁকি নিতে চাইছি না আমরা। খুব শিগগিরই স্যার আবারও সিঙ্গাপুরে যাবেন। নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর দলে মনোনয়ন বাণিজ্যের অভিযোগ ওঠার মধ্যে চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরে গিয়েছিলেন এরশাদ।
ভোটের আগে সিঙ্গাপুর থেকে ফেরেন তিনি। নির্বাচনে রংপুর-৩ আসনে বিজয়ী হওয়ার পর সংসদ সদস্য হিসেবে শপথও নেন তিনি। শপথ নিতে তিনি সংসদ ভবনে গিয়েছিলেন হুইল চেয়ারে। এরপর এরশাদ সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা হিসেবে স্বীকৃতি নেন। তবে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূতের পদ হারান।
নিজের শারীরিক অবস্থার কথা বিবেচনা করে এরশাদ ঘোষণা দিয়েছেন, তার অবর্তমানে দলের চেয়ারম্যান হবেন তার ভাই ও দলের কো চেয়ারম্যান জি এম কাদের। স্ত্রী ও বিদায়ী সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদকে বাদ রেখে ভাই জি এম কাদেরকে সংসদে বিরোধীদলীয় উপনেতাও বানিয়েছেন এরশাদ। ‘গৃহপালিত বিরোধী দলের’ তকমা মুছতে এরশাদ এবার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটের সঙ্গে নির্বাচন করলেও এবার মন্ত্রিসভায় তারা যোগ দেবেন না।
২২ আসনে জয় পাওয়া জাতীয় পার্টি সংসদে ‘কার্যকর বিরোধী দলের’ ভূমিকা রাখবে বলে প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন জি এম কাদের। সোমবার ঢাকার বনানী কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যন জি এম কাদের বলেন, জাতীয় পার্টি কখনোই প্রশ্নবিদ্ধ বিরোধী দল হবে না। সংসদে প্রকৃত বিরোধী দলের ভূমিকা রেখেই সাধারণ মানুষের আস্থা অর্জন করবে জাতীয় পার্টি। যাতে আগামী জাতীয় নির্বাচনের আগেই জাতীয় পার্টি আরও শক্তিশালী দল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হতে পারে। রাজনৈতিক সমীকরণে ‘অনেক জনপ্রিয় ও সামাজিকভাবে প্রতিষ্ঠিত’ নেতা জাতীয় পার্টিতে যোগ দেবেন বলেও আশা করছেন কাদের।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.