প্রাথমিকে ঝরে পড়ার হার ১৮.৬০%

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
প্রাথমিকে ঝড়ে পড়ার হার ১৮.৬০ শতাংশ বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন। গতকাল রবিবার জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তরে এসব তথ্য জানান তিনি। নওগাঁর ইসরাফিল আলমের প্রশ্নে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন বলেন, ২০১৮ সালের শুমারি অনুযায়ী প্রাথমিক চক্রে ঝরে পড়ার হার ১৮ দশমিক ৬০ শতাংশ। এর মধ্যে প্রথম শ্রেণিতে ২ দশমিক দুই শতাংশ, দ্বিতীয় শ্রেণিতে ২ দশমিক আট শতাংশ, তৃতীয় শ্রেণিতে ২ দশমিক নয় শতাংশ, চতুর্থ শ্রেণিতে ৭ দশমিক ছয় শতাংশ ও পঞ্চম শ্রেণিতে ৩ দশমিক তিন শতাংশ।
ফেনীর নিজাম উদ্দিনের প্রশ্নে প্রতিমন্ত্রী জানান, ২০১৮ সালের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শুমারি অনুযায়ী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মোট শিক্ষার্থী এক কোটি ৭৩ লাখ ৩৮ হাজার ১০০ জন। এর মধ্যে প্রথম শ্রেণিতে ৩২ লাখ ৩২ হাজার, ৮৬০ জন, দ্বিতীয় শ্রেণিতে ৩৪ লাখ ৬৫ হাজার ৪৩৬ জন, তৃতীয় শ্রেণিতে ৩৭ লাখ ১৮ হাজার ৭৮৮ জন, চতুর্থ শ্রেণি ৩৮ লাখ ২৫ হাজার ২১৮ জন এবং পঞ্চম শ্রেণিতে ৩০ লাখ ৯৫ হাজার ৭৯৮ জন।
চট্টগ্রামের এম আবদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জানান, ২০১৯ শিক্ষাবর্ষে প্রাক-প্রাথমিক থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত ২ কোটি ৩৯ লাখ ৬৫ হাজার ১৫১ জন শিক্ষার্থীর মাঝে ১০ কোটি ৬০ লাখ ৩২ হাজার ৯১২ কপি পাঠ্যপুস্তক বিতরণ করা হয়েছে। ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ভাষায় দুই লাখ ৭৭ হাজার ৬৮ হাজার পাঠ্যপুস্তক মুদ্রণ ও বিতরণ করা হয়েছে।
প্রতিমন্ত্রী আরো জানান, ২০০৯-২০১৮ সাল পর্যন্ত এক লাখ ৭৪ হাজার ৫৯৩ জন সহকারী এবং পাঁচ হাজার ১২৪ জন প্রধান শিক্ষক নিয়োগ করা হয়েছে। আরো ১২ হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগের জন্য ১৫ মার্চ ২০১৯ সাল থেকে পরীক্ষা শুরু হবে।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *