May 27, 2024
আঞ্চলিক

প্রযুক্তির সহায়তায় নারী ক্ষমতায়ন সংক্রান্ত সেমিনার অনুষ্ঠিত

তথ্য বিবরণী

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির (আইসিটি) মাধ্যমে নারীদের কর্মসংস্থান ও উদ্যোক্তা হিসেবে তৈরি, আইসিটি ইকো সিস্টেমে নারীদের অংশগ্রহণ এবং নারীর ক্ষমতায়নের গুরুত্ব সম্পর্কে দেশব্যাপী সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য ‘প্রযুক্তির সহায়তায় নারীর ক্ষমতায়ন’ শীর্ষক একটি প্রকল্প সরকার গ্রহণ করেছে।

এই প্রকল্পের আওতায় গতকাল শনিবার সকালে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে খুলনা জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে প্রশিক্ষক প্রশিক্ষণ সংক্রান্ত একটি সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। সকালে সেমিনারের উদ্বোধন করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব  এবং প্রধান অতিথি এন এম জিয়াউল আলম।

প্রধান অতিথি এনএম জিয়াউল আলম বলেন, সরকার ঘোষিত ভিশন ২০২১ তথা মধ্যম আয়ের বাংলাদেশ, ২০৪১ সালের উন্নত বাংলাদেশ এবং টেকসই উন্নলন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের কোন বিকল্প নেই। দেশের অর্ধেক জনসংখ্যা নারীকে প্রযুক্তি ব্যবহারে দক্ষ করতে পারলে দেশ দ্রæত এগিয়ে যাবে। এই প্রকল্প বাস্তবায়নে নারীরা সম্মানের সাথে, আনন্দের সাথে এবং সুন্দর পরিবেশে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করতে পারে সেদিকে নজর রাখতে হবে। প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রæতি এবং প্রযুক্তি বিভাগে দক্ষ জনবলের কারণে বিগত দশ বছরে ডিজিলাটাইজেশনে বাংলাদেশ অনেক দূর এগিয়েছে। উন্নত বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে হলে আমাদেরও দক্ষ হিসেবে গড়ে উঠতে হবে।

দেশের বৃহত্তর ২১টি জেলাসহ খুলনার ফুলতলা উপজেলায়ও এই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে। দুই বছর মেয়াদী এই প্রকল্পের আওতায় দেশে ১০ হাজার ৫০০ নারীকে প্রশিক্ষণ দিয়ে দক্ষ করে তোলা হবে। এর মধ্যে চার হাজার নারীকে ফ্রিল্যান্সার, চার হাজার নারীকে আইটি সার্ভিস প্রোভাইবার ও আড়াই হাজার নারীকে কল সেন্টার এজেন্ট হিসেবে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। প্রশিক্ষণ প্রাপ্তির পর এই নারীরা চাকুরির পাশাপাশি তারা নিজেরাই উদ্যোক্তা হিসেবে নিজেদেরকে প্রতিষ্ঠিত করতে পারবেন। সেমিনারে খুলনা ও রবিশাল বিভাগের ৫০জন প্রশিক্ষণার্থী অংশ নেন। প্রশিক্ষণার্থীরা প্রশিক্ষক হিসেবে পরবতীতে নারীদের প্রশিক্ষণ প্রদান করবেন।

সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন খুলনার অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) মোহাম্মদ ফারুক হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন সংশ্লিষ্ট প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক সোলায়মান মন্ডল, হাইটেক পার্কের প্রকল্প পরিচালক এ এন এম শফিকুল ইসলাম এবং খুলনার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন। স্বাগত জানান অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) গোলাম মাঈনউদ্দিন হাসান।

 

 

 

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *