পাটকেলঘাটা থেকে হারিয়ে যেতে বসেছে কাসা ও পিতল শিল্প

শাহিনুর রহমান, পাটকেলঘাটা

এ্যালুমিনিয়াম ও প্লাষ্টিক পণ্যের দাপটে  হারিয়ে যেতে বসেছে  পাটকেলঘাটার ঐতিহ্যবাহী কাসা ও পিতল শিল্প। ফলে, জীবিকার তাগিদে অন্য পেশায় যাচ্ছেন এ শিল্পের সঙ্গে জড়িতরা। কারিগরদের নিপুণ হাতে তৈরি কাসা ও পিতলের থালা, বাটি, কলসি, কাজলদানি, পুতুল ও মেডেলসহ নানান সামগ্রীর চাহিদাও ছিল ব্যাপক হারে। তবে সে সময় আর নেই। কাসা-পিতলের জায়গা দখল করে নিয়েছে অ্যালুমিনিয়াম ও প্লাষ্টিক পণ্য। দাম তুলনামূলক কম ও রংচঙ্গে হওয়ায় এসবের কাছে মার খেয়ে বিলুপ্ত হতে চলেছে কাসা-পিতলের পণ্য। ফলে এ শিল্পের সাথে জড়িতরা জীবনের তাগিদে বাধ্য হয়েছে পেশাটি ছাড়তে।

দেশীয় কৃষ্টি ও প্রাচীন ঐতিহ্য রক্ষায় সারাদেশের মত পাটকেলঘাটায় কাসা ও পিতল শিল্পকে বাঁচিয়ে রাখা জরুরি বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা। সাতক্ষীরা জেলার সর্ব বৃহৎ বাণিজ্য কেন্দ্র পাটকেলঘাটা। কয়েক বছর আগেও প্রায় মনোহারির দোকান গুলোতে কাসা ও পিতলের জিনিসে ভরপুর ছিলো। বিয়ের অনুষ্ঠান, অন্ন প্রাসন্ন, পুরষ্কার বিতরণী সহ সকল ক্ষেত্রে কাসা পিতলের ব্যবহার চোখে পড়ার মত ছিলো। এখনো এমন কোন পরিবার নেয় যে ঐতিহ্য ধরে রাখার জন্য কাসা পিতলর কদর ধরে রাখেনি। অতি মুল্যবান ধাতু হওয়ার সুবাদে দাম বেশী হলেও স্বাস্থ্য সম্মত। সকল ক্ষেত্রে গ্রহন যোগ্যতা টাকার মুল্যের সমান ছিলো। বিয়ে বাড়ীর অনুষ্টান বলতে তো কাসা পিতল ছাড়া কল্পনা করা যেত না। গ্রাম ও শহরের স্বনামধন্য পরিবারের মধ্যে এখনো কাসা পিতলের প্রচলন লক্ষ করা যায়।

পাটকেলঘাটা বাজারের কাসা পিতল ব্যবসায়ী আলিম হোসেন, মহাদেব সাধু, পার্থ সাধু , অশোক কুমার জানান, কয়েক বছর আগেও কাসা পিতলের প্রচলন এত বেশী ছিলো যে ব্যবসায়ীক ভাবে এগুলো সরবরাহ করতে হিমসিম খেয়েছি বর্তমানে প্লাষ্টিক এ্যালুমিনিয়ামের পন্যের কারনে এটার কদর একেবারে কমে গেছে।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.