পাটকেলঘাটায় হারিয়ে যেতে বসেছে সুস্বাদু ও উপকারী ফল আতা

 

পাটকেলঘাটা (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি

পাটকেলঘাটাসহ আশপাশের এলাকা থেকে হারিয়ে যেতে বসেছে সুস্বাদু ও উপকারী ফল আতা। আগে প্রায় সব বাড়ীর ও জমির আঙ্গিনায় আতা গাছ দেখা গেলেও এখন চোখে মেলানো মুসকিল হয়ে পড়েছে। দেশিয় ফল আতার আরেক নাম শরীফা। নোনা নামেও এটি পরিচিত। তবে আতা নামেই এ ফলটি সারা দেশে বেশি পরিচিত। বর্তমানে নানা কারণে প্রকৃতির মাঝ থেকে হারিয়ে যেতে বসেছে দেশিয় মুল্যবান ও উপকারী এসকল উদ্ভিদরাজি। তেমনি একটি দেশিয় বৃক্ষ আতাগাছ। আর এ আতা গাছেই জস্মে সুস্বাদু ফল ‘আতা’। বসত বাড়ির আঙ্গিনায় ও ঝোপ জঙ্গলে আতা গাছ জন্মে। আতা ফল আমাদের দেহ গঠনের জন্য খুব উপকারি।

ইউনানী চিকিৎসক হাকিম মোঃ মজিবর রহমান আতা ও গাছের উপকারিতার বিভিন্ন কথা বলেন, আতা ফলে রয়েছে খাদ্যআঁশ যা হজমশক্তি বৃদ্ধি করে ও পেটের সমস্যা দূর করে। আতাফলে রিবোফ্লাভিন ও ভিটামিন সি আছে। আর এই ভিটামিন উপস্থিতির কারণে দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধি পায়। যাদের চোখের সমস্যা তারা আতা ফল খেলে চোখের ভাল উপকার পাবে। এতে রয়েছে প্রচুর ক্যালসিয়াম। শরীরের হাড় গঠন ও মজবুত রাখার জন্য এফল অত্যন্ত কার্যকর। আতা ফলের ম্যাগনেসিয়াম মাংসপেশির জড়তা দূর করে এবং হৃদরোগ প্রতিরোধে সহায়তা করে। এর পটাশিয়াম ও ভিটামিন বি ৬ রক্তের উচ্চচাপ নিয়ন্ত্রণ করে এবং হৃদরোগ ও স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে। আতাফলে থাকা উচ্চমাত্রার অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে শক্তিশালী করে। দুরারোগ্য ব্যাধিকে দূর করে শরীরকে সুস্থ রাখতেও সাহায্য করে। আতা গাছের মূলের ছালের রস ২০/২৫ ফোঁটা ৭/৮ চা চামচ দুধ সহ খেলে আমাশয় ভাল হয়ে যায়। মাথায় উকুন দূর করতে আতাগাছের পাতার রস ২ চা চামচ তার সঙ্গে ২/১ চা চামচ পানি মিশিয়ে চুলে লাগিয়ে কিছুক্ষণ রাখলে উকুন মরে যাবে। একদিনে ফল না পেলে ২/৩ দিন পর আবার লাগাতে হবে। অভিজ্ঞ মহলের ধারনা দেশিয় প্রজাতির আতা ফল গাছটিকে আমাদের নিজেদের প্রয়োজনেই রক্ষা করা প্রয়োজন।

 

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.