March 4, 2024
বিনোদন জগৎ

নাসির উদ্দিনসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ-হত্যাচেষ্টার মামলা পরীমনির

ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে মামলা করেছেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী পরীমনি।  মামলায় দু’জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও চারজনকে আসামি করা হয়েছে।

সোমবার (১৪ জুন) সকালে পরীমনি নিজেই বাদী হয়ে মামলাটি করেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন সাভার মডেল থানার পরিদর্শক কাজী মাইনুল ইসলাম।

বেলা ১২টার দিকে পরিদর্শক কাজী মাইনুল ইসলাম জানান, মামলায় (মামলা নম্বর ৩৮) ছয় আসামির মধ্যে নাসির ইউ মাহমুদ ও ওমির নাম উল্লেখ করা হয়েছে। বাকি চার আসামি অজ্ঞাত।

তিনি জানান, পরীমণিকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার ঘটনায় এর আগে রাজধানীর মিরপুর বিভাগের রূপনগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছিল। যেহেতু ঘটনাটি ঘটেছে ঢাকার সাভার থানা এলাকায়, তাই রূপনগর থানায় করা লিখিত অভিযোগটি সাভার থানায় এনে মামলায় রূপান্তর করা হয়েছে।

দেশের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী পরীমনি তাকে ধর্ষণ ও হত্যা চেষ্টার অভিযোগ এনেছেন। এখন নিজের জীবন নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন বলে জানান তিনি।
রোববার (১৩ জুন) সন্ধ্যায় পরীমনি তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজ থেকে প্রথম এই অভিযোগ তুলে প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি খোলা চিঠি লেখেন। এরপর সাংবাদিকরা যোগাযোগ করলে তিনি তৎক্ষণাৎ তার নিজ বাসায় একটি সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন।
সংবাদ সম্মেলনে পরীমনি বলেন, ‘গত চারদিন ধরে একজন সাধারণ মেয়ে হিসেবে আমি দ্বারে দ্বারে ঘুরেছি। কিন্তু কারো হেল্প পাইনি। সবাইকে বলেছি, আমি সুইসাইড করার মতো মেয়ে না। যদি আমি মরে যাই, মনে করবেন আমাকে মেরে ফেলা হয়েছে। আর আপনাদের কাছে আমার অনুরোধ আপনারা আমাকে হত্যার বিচার করবেন। ’
এর আগে ঘটনার বর্ণনা দিয়ে আলোচিত এই অভিনেত্রী জানান, নাসির ইউ. মাহমুদ নামে একজন তাকে নেশাজাতীয় কিছু খাইয়ে এ ঘটনা ঘটাতে চেষ্টা করেছিলেন।
পরীমনি বলেন, ‘আমার কস্টিউম ডিজাইন করেন জিমি, আমাদের কাজের বাইরেও পারিবারিক সম্পর্ক রয়েছে। তার মাধ্যমে অমির সঙ্গে আমার পরিচয়। উনি বাসায় আসেন চারদিন আগে (ঘটনাটির দিন রাতে)। এর আগে সিনেমার ব্যাপারে মিটিংয়ের জন্য ডেট চাচ্ছিল কিন্তু আমি সময় দিতে পারছিলাম না। আমার নানু কয়েকদিন আগে অসুস্থ ছিলেন সেটা আপনারা জানেন। ’
তিনি আরও বলেন, ‘গত বুধবার রাত ১২টায় আমাকে বিরুলিয়ায় নাছির ইউ. মাহমুদের কাছে নিয়ে যায় অমি। সেসময় নাছির ইউ. মাহমুদ নিজেকে ঢাকা বোট ক্লাবের সভাপতি হিসেবে পরিচয় দেন। সেখানে নাছির ইউ. মাহমুদ আমাকে মদ খেতে অফার করে। আমি রাজি না হলে আমাকে জোর করে মদ খাওয়ানোর চেষ্টা করে। একপর্যায়ে আমাকে চড় থাপ্পড় মারে। তারপর আমাকে নির্যাতন ও হত্যা চেষ্টা করেন। অমিও এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত। ’
এরপর সাংবাদিকদের সামনে নিজের জীবন নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন বলে জানান পরীমনি। একইসঙ্গে তিনি কান্নায় ভেঙে পড়েন। নিজের সঙ্গে ঘটা এমন অপ্রীতিকর ঘটনা কোনোভাবেই মানতে পারছেন না পরীমনি। তাই এর সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন তিনি।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *