February 25, 2024
জাতীয়

নতুন রেল সংযোগ দু’দেশের মধ্যে সোনালী অধ্যায়ের সূচনা

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক

চিলাহাটি-হলদিবাড়ি রেলপথ সংযোগ প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের মধ্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের সোনালী অধ্যায় সূচনা হলো বলে মন্তব্য করেছেন রেলপথমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন। তিনি বলেন, এতে দু’দেশের মানুষের অর্থনৈতিক উন্নয়নের পাশাপাশি ব্যবসা-বাণিজ্যসহ জীবনযাত্রার মানোন্নয়ন হবে।

গতকাল শনিবার দুপুরে নীলফামারীর চিলাহাটির সঙ্গে ভারতের হলদিবাড়ির রেল যোগাযোগ স্থাপনের লক্ষে ব্রডগেজ রেলপথ নির্মাণ প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন কাজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

রেলপথমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় এলেই রেলের উন্নতি হয়। আর অন্য দল ক্ষমতায় থাকলে সব লুটেপুটে খায়। তিনি আরও বলেন, ১৯৪৭ সালের ১৫ আগস্ট ভারত ভাগের পরও তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানে নীলফামারীর চিলাহাটি-হলদিবাড়ির মধ্যে ট্রেন যোগাযোগ ছিল। এছাড়াও ১৯৬৫ সাল পর্যন্ত ভারতের হলদিবাড়ির সঙ্গে পাকিস্তানের রেল যোগাযোগ ছিল। ওই সময় দার্জিলিং মেইল ট্রেনটি তখনও এ পথে দর্শনা হয়ে যাতায়াত করতো।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার রীভা গাঙ্গুলী দাস বলেন, বাংলাদেশ আর্থ-সামাজিকভাবে উত্তরোত্তর উন্নতিতে প্রতিবেশী ও বন্ধুরাষ্ট্র হিসেবে ভারত গর্ববোধ করে।

রেলপথ মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য আসাদুজ্জামান নুর, নীলফামারী-১ আসনের সংসদ সদস্য আফতাব উদ্দিন সরকার, সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য রাবেয়া আলীম, পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের মহাব্যস্থাপক (জিএম) হারুন-অর-রশীদ, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন, জেলা প্রশাসক (ডিসি) হাফিজুর রহমান চৌধুরী, পুলিশ সুপার (এসপি) মুহাম্মদ আশরাফ হোসেনসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

মোট ৮০ কোটি ১৭ লাখ টাকা ব্যয়ে বাংলাদেশের চিলাহাটি থেকে ভারতের হলদিবাড়ি পর্যন্ত ৬ দশমিক ৭২৪ কিলোমিটার এ রেলপথ স্থাপনের কাজ করছে ‘ম্যাক্স ইনফ্রাস্ট্রাকচার লিমিটেড’ নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। ২০২০ সালে জুন-জুলাইয়ের মধ্যে রেলপথটিতে ট্রেন চলাচল উদ্বোধন করা হবে বলে জানা গেছে।

 

 

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *