নগরীতে দুই শতাধিক শ্রমিকের বিরুদ্ধে পুলিশের মামলা দায়ের

পাবলা পুলিশ বক্সে হামলা

 

দ: প্রতিবেদক

নগরীর নতুন রাস্তা মোড়ে অবস্থিত পাবলা পুলিশ বক্সে হামলা, ভাঙচুর ও পুলিশ সদস্যদের উপর হামলার অভিযোগে অজ্ঞাত পরিচয় ২০০/২৫০ জন শ্রমিককে আসামি করে দৌলতপুর থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার (০৪ এপ্রিল) রাতে দৌলতপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) অমিত বাগচী বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন। তবে এ ঘটনায় এখনও কেউ আটক হয়নি।

দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী মোস্তাক আহমেদ জানান, বৃহস্পতিবার সকালে পাটকল শ্রমিকদের অবরোধ চলাকালে একদল উচ্ছৃংখল শ্রমিক পাবলা পুলিশ বক্সে হামলা চালায়। তারা পুলিশ বক্স, পুলিশের একটি মোটরসাইকেল ও অ্যাম্বুলেন্স ভাঙচুর করে। হামলায় পুলিশ ইন্সপেক্টর আবুল বাশারসহ চার পুলিশ সদস্য আহত হন। এছাড়া হামলাকারীরা পুলিশের সরকারি কাজে বাধা দেন।এসব অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। ছবি ও ভিডিও ফুটেজ দেখে হামলাকারীদের শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে বলে জানান ওসি।

উলে­খ্য, নয় দফা দাবিতে ৭২ ঘণ্টার ধর্মঘট ও প্রতিদিন চার ঘণ্টা করে রাজপথ-রেলপথ অবরোধ কর্মসূচির বৃহস্পতিবার ছিলো শেষ দিন। বাংলাদেশ পাটকল শ্রমিক লীগের ডাকে খুলনার ক্রিসেন্ট, প্লাটিনাম, খালিশপুর, দৌলতপুর, স্টার, ইস্টার্ন, আলিম এবং যশোরের জেজেআই ও কার্পেটিং জুট মিলের শ্রমিকরা এ আন্দোলন কর্মসূচি পালন করেন।

কর্মসূচি চলাকালে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পাবলা পুলিশ বক্সের অদূরে পুলিশের সিটিএসবি শাখার একজন সদস্য মোবাইলে ভিডিও ধারণ করাকে কেন্দ্র করে পুলিশের সাথে শ্রমিকদের বাকবিতণ্ডা হয়। এ সময় উত্তেজিত শ্রমিকরা নতুন রাস্তার মোড়ের পাবলা পুলিশ বক্সে লাঠিসোটা নিয়ে ভাঙচুর করে। এ সময় পুলিশ তাদের নিয়ন্ত্রণের জন্য ধাওয়া দিলে শুরু হয় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ। পরে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের ইটের আঘাতে ঘটনাস্থলেই ৪ পুলিশ সদস্য গুরুতর আহত হন।

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.