নগরীতে আ’লীগ নেতাকে পিটিয়ে হত্যার চেষ্টা, আইসিইউতে ভর্তি

 

দ: প্রতিবেদক

খুলনা মহানগরীর ২৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শেখ সিদ্দিকুর রহমানের উপর হামলা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। গত শনিবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে নতুন বাজার তার ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান থেকে বাসায় ফেরার পথে সাবেক মেয়র শেখ তৈয়েবুর রহমানের বাড়ির অদুরে দুর্বৃত্তরা এ হামলা চালায়। আহত শেখ সিদ্দিকুর রহমান দুর্বৃত্তদের হামলায় সংকটাপন্ন অবস্থায় নগরীর গাজী মেডিকেল হাসপাতালের আইসিইউ-এ চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

চিকিৎসক ও পরিবার সূত্রে জানায়, শেখ সিদ্দিকুর রহমান নতুন বাজারে তার ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান থেকে বাসায় ফেরার পথে গগণ বাবু রোডে সাবেক মেয়র শেখ তৈয়েবুর রহমানের বাড়ি অদুরে আসা মাত্রই পূর্ব থেকে ওঁৎ পেতে থাকা দুর্বৃত্তরা তার মুখে স্প্রে মেরে হত্যার উদ্দেশ্যে রড দিয়ে উপর্যুপরি বেধড়ক পেটাতে থাকে। সিদ্দিক অজ্ঞান হয়ে পড়ে গেলে দুর্বৃত্তরা মৃত ভেবে রাস্তায় ফেলে পালিয়ে যায়। বিশিষ্ট চিংড়ি ব্যবসায়ী সেকেন্দার জাকির উল্লাহ খান গেদু বাসায় ফেরার পথে তাকে রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখে উদ্ধার করে প্রথমে নার্গিস মেমোরিয়াল হাসপাতালে পরে অবস্থা আশংকাপূর্ণ হওয়ায় গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে তাকে নিবিড় পর্যবেক্ষনে (আইসিইউ) রাখা হয়েছে। গত ৪৮ ঘন্টায়ও তার জ্ঞান ফিরে আসেনি বলে চিকিৎসকরা জানান। এ ঘটনায় পরিবারের পক্ষ হতে সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে।

এদিকে আওয়ামী লীগ নেতা শেখ সিদ্দিকুর রহমানকে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা করার তীব্র প্রতিবাদ, ক্ষোভ ও নিন্দা এবং প্রকৃত দোষীদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের আহবান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, একজন চিংড়ি ব্যবসায়ী বাড়ি ফেরার পথে অর্তকিত সন্ত্রাসী এ হামলার পরিকল্পিত এবং হত্যার উদ্দেশ্যে পরিকল্পনা করেই এ হামলা চালানো হয়েছে। অবিলম্বে হামলাকারীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের মাধ্যমে সমাজ ও দেশ থেকে নরপশুদের চিরতরে উচ্ছেদ করতে হবে।

মানুষকে শান্তির নিরাপত্তা নিশ্চয়তা প্রদানের জন্য পুলিশসহ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের প্রতি আহবান জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন, কেন্দ্রিয় নেত্রী, শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক, খুলনা-২ আসন থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য সেখ সালাহ্ উদ্দিন জুয়েল, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক, ১৪ দলের সমন্বয়ক ও সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান, জেলা আওয়ামী লীগ ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. সুজিত অধিকারী, সদর থানা আওয়ামী লীগ সভাপতি এ্যাড. মো. সাইফুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক কাউন্সিলর ফকির মো. সাইফুল ইসলাম, ২৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি আব্দুল হাই পলাশ, সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. শামীম মোশাররফ।

 

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.