ধর্ষণ মামলায় পুলিশ সদস্যকে গ্রেপ্তারে পরোয়ানা

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
ঢাকায় ‘সাবলেট’ হিসেবে বাসা ভাড়া নিয়ে গৃহবধূকে ধর্ষণের মামলায় পুলিশ সদস্য তরুন কান্তি বিশ্বাসের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছে ঢাকার একটি আদালত। ঢাকার ৩ নম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক জয়শ্রী সমাদ্দার রবিবার পরোয়ানা জারির আদেশ দেন।
এ ট্রাইব্যুনালের পেশকার মোক্তার হোসেন জানান, ২০১৭ সালের ১৮ অক্টোবর ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলাটি দায়ের করা হয়। পরে বিচারক পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) মামলাটি তদন্তের নির্দেশ দেন। পিবিআইয়ের পরিদর্শক শামীম আহমেদ গত ২০ নভেম্বর আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। এদিন ওই তদন্ত প্রতিবেদন আমলে নিয়ে আসামির বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন বিচারক।
মামলায় বলা হয়, ২০১৫ সালের মে মাসে রাজারবাগ পুলিশ লাইনে কর্মরত ছিলেন পুলিশ সদস্য তরুন কান্তি। সে সময় তিনি ওই নারীর ভাড়া করা বাসায় ‘সাবলেট’ হিসেবে ওঠেন।পরে তিনি বিভিন্ন সময় তাকে উত্ত্যক্ত করেন। স্বামী ঘরে না থাকার সুযোগে ওই গৃহবধূকে দুধের সাথে ঘুমের ওষুধ খাওয়ান তরুণ কান্তি। এতে অচেতন হয়ে পড়ায় তিনি তার ভিডিও করেন।
ওই ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে তরুণ কান্তি ওই গৃহবধূকে তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করতে বাধ্য করেন। তাকে বিয়ের আশ্বাসও দেওয়া হয় বলে মামলায় অভিযোগ করেছেন ওই নারী। পরে ওই পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯ (১) ধারায় ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করেন ওই গৃহবধূ।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.