July 13, 2024
জাতীয়

দেশে কতটি আইসিইউ-সিসিইউ, জানতে চায় হাই কোর্ট

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
দেশের সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল, ক্লিনিকগুলোতে কতগুলো ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিট (আইসিইউ), করোনারি কেয়ার ইউনিট (সিসিইউ) আছে, তার হিসাব চেয়েছে হাই কোর্ট। সেই সঙ্গে একটি আইসিইউ বা সিসিইউ ইউনিট তৈরির জন্য কত টাকা খরচ হয়, কী পরিমাণ লোকবল ও বিশেষজ্ঞের প্রয়োজন, সে বিষয়েও প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।
আগামী ২৪ এপ্রিলের মধ্যে স্বাস্থ্য সচিব ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকে হলফনামা আকারে এ প্রতিবেদন দিতে হবে। সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার পরিচালনায় নীতিমালা প্রণয়ন ও চিকিৎসা সেবার মূল্য তালিকা প্রদর্শনের বিষয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অগ্রগতি প্রতিবেদনের ওপর শুনানি করে বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের হাই কোর্ট বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেয়।
‘দ্য মেডিক্যাল প্র্যাকটিস অ্যান্ড প্রাইভেট ক্লিনিকস অ্যান্ড ল্যাবরেটরিস (রেগুলেশনস) অর্ডিন্যান্স-১৯৮২’ অনুযায়ী নীতিমালা প্রণয়নে আদালতের আদেশ কতটুকু বাস্তবায়ন হয়েছে, তার অগ্রগতি প্রতিবেদন দিতে গত ১৯ ফেব্র“য়ারি আদেশ দিয়েছিল হাই কোর্ট।
সে অনুযায়ী স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় গত ৪ মার্চ অগ্রগতি প্রতিবেদন দাখিল করে। সেটিই বুধবার আদালতে উপস্থাপন করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু। আর রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী বশির আহমেদ।
অগ্রগতি প্রতিবেদনে বলা হয়, আদালতের নির্দেশে গত ২৪ জানুয়ারি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি করা হয়েছে।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হাসপাতাল ও ক্লিনিকগুলোর পরিচালক, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলের রেজিস্ট্রার, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব ও বেসরকারি হাসপাতাল-ক্লিনিক মালিক সমিতির মহাসচিব সদস্য হিসেবে আছেন ওই কমিটিতে।
এই কমিটি বেসরকারি হাসপাতাল, ক্লিনিক, ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার পরিচালনার জন্য খসড়া নীতিমালা প্রণয়ন করেছে। আদালতের আদেশের পর ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু সাংবাদিকদের বলেন, নীতিমালা প্রণয়নে আদালতের আদেশ কতটুকু বাস্তবায়ন হয়েছে, তার অগ্রগতি প্রতিবেদন দেওয়া হয়েছে। অগ্রগতি প্রতিবেদনে একটি খসড়া নীতিমালা দিয়েছে মন্ত্রণালয়, সেটি উপস্থাপন করা হয়েছে।
আদেশের আগে আদালত ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজুর কাছে জানতে চায়, দেশে কতগুলো আইসিইউ ইউনিট আছে।
উত্তরে সাজু জানান, ৭২টি। তার মধ্যে ঢাকা মেডিকেলে সবচেয়ে বেশি, ৩০টি। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে আছে ১০টি।
এ পর্যায়ে রিটকারী আইনজীবী বশির উল­াহ দেশের সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল, ক্লিনিকে আইসিইউ-সিসিইউ স্থাপনের বিষয়ে আদেশ চাইলে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু তাতে আপত্তি জানান।
তিনি বলেন, একটি আইসিইউ ইউনিট স্থাপন করতে আড়াই থেকে তিন কোটি টাকা লাগে। তাছাড়া পর্যাপ্ত প্রশিক্ষিত লোকবল, বিশেষজ্ঞের প্রয়োজন। এ আদেশ দিলে তা বাস্তবায়ন কতটুকু সম্ভব সেটাও বিবেচনা করতে হবে।
বিচারক তখন বলেন, দেশ তো এখন আর গবিব না। চিকিৎসা সেবায়ও প্রভূত উন্নতি হয়েছে। দেবী শেঠী যেখানে আমাদের চিকিৎসা সেবার প্রসংশা করেছেন এটা কিন্তু ভালো দিক। তবে সে অনুযায়ী কিন্তু আমাদের চিকিৎসা সেবার উন্নতি দৃশ্যমান হচ্ছে না। আপনি টাকার চিন্তা করছেন কেন? এরপর আদালত আদেশ দেয়।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *