দুর্নীতি-মাদকমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে সরকার দৃঢ়প্রতিজ্ঞ : রাষ্ট্রপতি

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক

বর্তমানে জনজীবনে স্বস্তি বিরাজ করছে বলে মন্তব্য করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। তিনি বলেন, দুর্নীতি, সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে সরকার দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। দুর্নীতি জুয়া, মাদক, জঙ্গিবাদ, উগ্রবাদ ও সা¤প্রদায়িকতা প্রতিরোধে সরকারের ‘জিরো টলারেন্স’নীতি ব্যাপক সাফল্য পেয়েছে। এটা বিশ্বব্যাপী প্রশংসিতও হচ্ছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার একাদশ জাতীয় সংসদের ষষ্ঠ অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে বিকাল ৪টায় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অধিবেশন শুরু হয়।

রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘সব রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণে ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে একাদশ জাতীয় সংসদ গঠিত হয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের জনগণের বিপুল সমর্থনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার গঠিত হয়।’’

বর্তমান সরকারের সাফল্যের প্রসঙ্গে রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘গত মহাজোট সরকারের ধারাবাহিকতায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আজীবন লালিত স্বপ্ন সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের এবং ২০৪১ সালের মধ্যে একটি উন্নত সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ গড়ে তোলার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশের শ্রেণিতে উত্তরণের সব যোগ্যতা অর্জন করেছে। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল।’

রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘দেশে আইনের শাসন সুসংহত ও সমুন্নত রাখার ক্ষেত্রে বর্তমান সরকারের সর্বাত্মক প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। দুর্নীতি, সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে সরকার দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। সুশাসন প্রতিষ্ঠার জন্য দুর্নীতি দমন কমিশনকে আরও শক্তিশালী করা হয়েছে। জাতীয় মানবাধিকার কমিশন ও তথ্য কমিশন প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলা এবং মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলার রায় কার্যকর করা হয়েছে। পলাতক আসামিদের ফিরিয়ে আনার প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা ও হত্যা মামলা এবং বিডিআর হত্যাকাÐ মামলার বিচারকার্য সম্পন্ন হয়েছে। বিভিন্ন মেয়াদে শাস্তি দেওয়া হয়েছে। এছাড়া, হলি আর্টিজান হামলা মামলা, নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলাসহ বিভিন্ন চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলার রায় দ্রæত ঘোষণা করা হয়েছে।’ খ্রিষ্টীয় নতুন বছরের প্রথম এই অধিবেশন চলবে ১৮ ফেব্রæয়ারি পর্যন্ত।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.