দীর্ঘদিন পর নির্বিঘ্নে ঢাবি ক্যাম্পাসে ছাত্রদল

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
দীর্ঘদিন পর কোনো ধরনের বাধা ছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে এলেন বিএনপি সমর্থক ছাত্র সংগঠন ছাত্রদলের কয়েকশো নেতাকর্মী। ডাকসু নির্বাচনকে সামনে রেখে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে উপাচার্যকে স্মারকলিপি দিতে ক্যাম্পাসে আসেন তারা। দীর্ঘ সময় পর ক্যাম্পাসে আসতে পেরে অনেকেই উচ্ছ¡সিত হন, মোবাইল ফোনে ছবিও তুলতে দেখা যায় অনেককে।
সকাল ১০টা ৫০ মিনিটে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি রাজীব আহসান, সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি আল মেহেদী তালুকদার, সাধারণ সম্পাদক বাশার সিদ্দিকী কয়েকশো নেতাকর্মী নিয়ে উপাচার্যের কার্যালয়ে আসেন। শীর্ষ চার নেতা উপাচার্যের কার্যালয়ে ঢুকলেও বাকিরা বাইরে ছিলেন।
উপাচার্যকে স্মারকলিপি দিয়ে বেরিয়ে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলার পর ভিসি চত্বর, টিএসসি, চারুকলা হয়ে হেঁটে শাহবাগ যান ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সরকার সমর্থক সংগঠন ছাত্রলীগের দাপটে কোনঠাসা হয়ে পড়তে থাকে ছাত্রদল।
২০১০ সালের ১৮ জানুয়ারি ছাত্রদল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মিছিল বের করলে ছাত্রলীগের হামলার মুখে পড়ে। পরের বছর একবার মিছিল করার চেষ্টা করলে পুলিশ নেতাকর্মীদের সরিয়ে দেয়। দুই বছর আগে ২০১৭ সালের ১০ অগাস্ট ডাকসু নির্বাচন নিয়ে শিক্ষার্থীদের ডাকা উন্মুক্ত আলোচনায় যোগ দিয়ে ছাত্রলীগের ধাওয়ার মুখে পড়েন ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা।
এরপর গত বছরের ১৬ সেপ্টেম্বর ডাকসু নির্বাচন নিয়ে এক মতবিনিময় সভায় যোগ দিতে এসে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী ও ছাত্রদল সভাপতি রাজীব আহসানের আলিঙ্গনের বিরল দৃশ্য দেখা যায়। ডাকসু নির্বাচনকে ঘিরে ক্যাম্পাসে সব সংগঠনের সহাবস্থান নিশ্চিতের দাবি জানিয়ে আসছে ছাত্রদল।
সবশেষ গত ১০ জানুয়ারি প্রক্টোরিয়াল বডির পাহারায় ডাকসুর গঠনতন্ত্র সংশোধন নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের আলোচনায় যোগ দেন ছাত্রদলের দুই নেতা। সেখানেও তারা ক্যাম্পাসে সহাবস্থান নেই বলে জানান।
বৃহস্পতিবার উপাচার্যের কাছে দেওয়া স্মারকলিপিতে ডাকসু ও হল সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগে ক্যাম্পাস ও হলগুলোতে ন্যূনতম তিন মাস সব সংগঠনের সহাবস্থান ও স্বাভাবিক রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের পরিবেশ নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছে ছাত্রদল।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.