দলীয় কার্যালয় ভাঙচুর নগরীতে যুবলীগ নেতাসহ তিনজন কারাগারে

দ: প্রতিবেদক
খুলনায় অভান্তরীণ কোন্দলের জেরে দলীয় কার্যালয় ভাঙচুরের ঘটনায় দ্রুত বিচার আইনের মামলায় সোনাডাঙ্গা থানা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক  শেখ শহীদ আলীসহ তিনজনকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে আদালত। গতকাল শুক্রবার বিকালে তাদের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে মহানগর হাকিম শাহীদুল ইসলাম এই আদেশ দিয়েছেন।
কারাগারে পাঠানো যুবলীগের নেতাকর্মীরা হলেন সোনাডাঙ্গা থানা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক শেখ শহীদ আলী, শেখপাড়া মেইনরোড এলাকার মৃত আবদুস সোবাহান হাওলাদারের ছেলে ওয়ার্ড যুবলীগের সদস্য সিরাজুল ইসলাম সুজন ও সোলায়মান নগর দ্বিতীয় গলির বাসিন্দা সুনীল সূত্রধরের পুত্র সুমন সূত্রধর।
মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণী থেকে জানা গেছে, গত ৩ জানুয়ারি দুপুর দেড়টার দিকে শের-ই-বাংলা রোডের আমতলা মোড় এলাকায় ওয়ার্ড যুবলীগের একটি কার্যালয়ে অভিযুক্তরা হামলা চালায়। এসময় তারা ওই কার্যালয়ের ভেতরে চেয়ার, টেবিলসহ রাজনৈতিক নেতাদের ছবিও নষ্ট করে। পুলিশ ওই ঘটনায় সিসি ক্যামেরায় ধারণ হওয়া ভিডিও রেকর্ড সংগ্রহ করেছে। ঘটনার পরপরই পুলিশের একাধিক টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে অবস্থান নেন। তারা আমতলা মোড় এলাকা থেকে সোনাডাঙ্গা থানা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক শেখ শহীদ আলী ও সুজন নামের একজন যুবলীগকর্মীকে আটক করে। এরপর রাতে অভিযান চালিয়ে সুমনকে আটক করে। এ ঘটনায় কার্যালয় ভাঙচুরের অভিযোগ এনে দ্রুতবিচার আইনে সোনাডাঙ্গা মডেল থানায় মামলাটি করেন জনৈক সারফরাজ মিয়া (নং-০২)। মামলায় ১৯ জনের নাম উলে­খসহ অজ্ঞাত ৩০/৪০ জনকে আসামি করা হয়েছে। আদালত এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তাকে হামলার মুহূর্তের ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ এবং আগামী সোমবার আদালতে শুনানির জন্য দিন নির্ধারণ করেছে।
সোনাডাঙ্গা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মমতাজুল হক জানান, মামলা দায়ের হয়েছে তদন্ত চলছে। তিনজনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.