ত্রুটিপূর্ণ প্রক্রিয়ার কারণে শ্রমিক অসন্তোষ : সিপিডি

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
তৈরি পোশাক শিল্পে শ্রমিকদের সাম্প্রতিক অসন্তোষের প্রধান কারণ হিসেবে মজুরি কাঠামো নির্ধারণে ত্রুটিপূর্ণ প্রক্রিয়াকে চিহ্নিত করেছে সিপিডি। সেই সঙ্গে শ্রমিকদের কাছে মজুরি বাড়ার সঠিক তথ্য পৌঁছানোর ক্ষেত্রে ঘাটতিও খুঁজে পেয়েছে গবেষণা সংস্থাটি।
শনিবার ঢাকার ব্র্যাক সেন্টারে ‘পোশাকখাতে সাম্প্রতিক মজুরি বিতর্ক: কী শিখলাম?’ শীর্ষক সংলাপে নিজেদের পর্যবেক্ষণ তুলে ধরে সিপিডি। এই ধরনের সমস্যা এড়াতে কিছু সুপারিশও তুলে ধরেছে সংস্থাটি। বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি এই সুপারিশের প্রশংসা করলেও তা এদেশের জন্য প্রযোজ্য নয় বলে মত জানিয়েছেন শিল্প মালিকরা।
এ মাসের শুরুতে তৈরি পোশাক শিল্পে নতুন মজুরি কাঠামো বাস্তবায়নের পর দেখা দেয় শ্রমিক অসন্তোষ। পরে সরকারের উদ্যোগে কয়েকটি গ্রেডে সংশোধন এনে মজুরি কাঠামো সংস্কার করলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।
ঢাকা, সাভার, আশুলিয়া, টঙ্গী, গাজীপুর অঞ্চলের ৬১ জন শ্রমিক, কারখানা মালিক ও ক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে এই অসন্তোষের কারণ খুঁজে বের করার প্রয়াস চালায় সিপিডি; যা শনিবারের অনুষ্ঠানে তুলে ধরেন সংস্থার গবেষক খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম ও মোহাম্মদ আলী। সিপিডির মতে, নতুন বেতন কাঠামো ঘোষণার আগে ও পরের বিভিন্ন ধাপের কাজে যে ত্রুটিপূর্ণ প্রক্রিয়া অবলম্বন করা হয়েছিল, তার ফলেই শ্রমিকদের মধ্যে অস্থিরতা ছড়িয়ে পড়ে।
মজুরি নির্ধারণের ক্ষেত্রে যথার্থ প্রতিষ্ঠানিক প্রক্রিয়া অবলম্বন করা হয়নি বলে সংস্থাটি মনে করে। তারা বলছে, মজুরি বৃদ্ধির ক্ষেত্রে গ্রেডভিত্তিক তারতম্য সৃষ্টি হওয়ায় শ্রমিকদের মাঝে অঞ্চল ও গ্রেডভেদে মিশ্র উপলব্ধির জন্ম দেয়।
পাশাপাশি তারা বলেছে, নতুন মজুরি সম্পর্কে শ্রমিকদের পূর্ব ধারণা দেওয়ার কোনো উদ্যোগ অধিকাংশ মালিকই নেননি। আবার একেক কারখানায় একেকভাবে মজুরি বাস্তবায়ন ঘটেছে, আবার অনেক কারখানা নতুন কাঠামো অনুসরণ করে মজুরি বাড়ায়নি।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.