তেজগাঁওয়ে বাসের চাকায় শিশু পিষ্ট, থানায় চালকের আত্মসমর্পণ

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক

রাজধানীর তেজগাঁওয়ে বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে ফারজানা (১০) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন বাবা মাওলানা মিজানুর রহমান। গতকাল শুক্রবার বিকাল ৪টায় রাজধানীর তেজগাঁও থানার পাশের এই দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনার পরপরই দেওয়ান পরিবহনের ওই বাসচালক সোহেল রানা বাস থামিয়ে তেজগাঁও থানায় গিয়ে হাজির হন।

নিহত শিশুটির লাশ ময়নাতদন্তের জন্য সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। মাওলানা মিজানুর রহমান গাজীপুরে জামেয়া রহমানিয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ। তিনি শেরেবাংলা নগরে নিউরো সায়েন্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

তেজগাও থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. কামাল উদ্দিন বলেন, দেওয়ান পরিবহনের একটি বাসের চাপায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। বাসটি বিশ্বরোড থেকে আজিমপুরের দিকে যাচ্ছিল।

তিনি জানান, মাওলানা মিজানুর রহমানের বাসা গাজীপুরে। মেয়েকে নিয়ে তিনি টঙ্গিতে ইজতেমায় আসেন। জুমার নামাজ শেষে তিনি সেখান থেকে ঢাকায় আসেন। বিজয় সরণী সিগনালে তারা দাঁড়িয়েছিলেন। সিগন্যাল ছাড়ার সঙ্গে সঙ্গে দেওয়ান পরিবহনের গাড়ি ও মিজানুর রহমানের মোটরসাইকেল দ্রæত গতিতে ছুটে।

একপর্যায়ে গাড়ির সঙ্গে মোটরসাইকেলের ধাক্কা লেগে বাবা-মেয়ে ছিটকে সড়কে পড়ে যান। পরে গাড়িটি শিশুর ওপর দিয়ে চলে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। দুর্ঘটনার পরপরই দেওয়ান পরিবহনের গাড়িচালক সোহেল রানা বাস থামিয়ে তেজগাঁও থানায় গিয়ে হাজির হন। তিনি এখনও পুলিশ হেফাজতে আছেন।

এদিকে ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী আজিজুর রহমান জানান, মোটরসাইকেল চালক সড়কের ডানপাশ ঘেঁষে যাচ্ছিলেন। দেওয়ান পরিবহনের গাড়িটি তার ঠিক পেছনেই ছিল।

তেজগাঁও থানার অদূরে মোটরসাইকেল চালক লেন পরিবর্তন করতে গেলে গাড়ির সঙ্গে ধাক্কা লেগে দুজনে পড়ে যান। গাড়ির পেছনের ডান পাশের চাকা শিশুটির মাথার উপর দিয়ে চলে যায়। আহত হলেও অল্পের জন্য রক্ষা পান শিশুটির বাবা।

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.