তালাবাসীর বাইপাস স্বপ্ন পূরণে বাঁধা অপরিকল্পিত ইজারা!

তালা (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি

তালাবাসীর সড়ক দুর্ঘটনা থেকে মুক্ত হতে বহুদিনে স্বপ্ন বাইপাস সড়ক। সেটি আজ বাঁধা হয়ে দাড়ালো স্থানীয় ভূমি কর্মকর্তাদের অপরিকল্পিত ইজারা। তালা উপজেলা সদর বাজারে একটি মাত্র (খুলনা-পাইকগাছা) সড়ক। ভিন্ন রাস্তা না থায় প্রতিনিয়ত সৃষ্টি হয় যানজট। যার ফলে ঘটতে থাকে সড়ক দুর্ঘটনা। তালা বাসীর অনেকদিরে প্রত্যাশা একটি বাইপাস সড়ক। তাহলে রোধ হবে সড়ক দুর্ঘটনা, হারাতে হবে না অকালে আর কারো জীবন। কিন্তু প্রশাসনের অপরিকল্পিত জায়গা ইজারার কারণে আবারও জীবন দিতে হবে বাবুলালের মত অনেকেই। তালা বাসীর একটি দাবী, পরিকল্পিত ইজারা দিয়ে বাইপাসের জায়গা উন্মুক্ত করতে হবে। এক্ষুনি এর ব্যবস্থা গ্রহণ করা না হলে তালায় ঘটে যেতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। এ ঘটনায় তালা বাজারের ব্যবসায়ী মহল, সুধী সমাজ এবং সাধারণ মানুষ ক্ষোভে ফুঁসে উঠেছে।

শনিবার সকালে সরেজমিন ঘুরে দেখো গেছে, তালা একগলির বাজার। ফলে সৃষ্টি হয় যানজট ঘটতে থাকে সড়ক দুর্ঘটনা। এই সড়ক দুর্ঘটনা থেকে তালাকে মুক্ত করতে হলে বাইপাসের বিকল্প নেই। ইতোপূর্বে সরকার ২৬১ কোটি ৫৪ লাখ ৮৩ হাজার টাকা ব্যয়ে কপোতাক্ষ খননের পর জেগে ওঠে চরভরাটি জমি। তখনি বাইপাস স্বপ্ন পূরণে জেগে ওঠে আশার আলো। ইতোমধ্যে চরভরাটি জায়গায় বাইপাস নির্মাণের লক্ষে ৩টি ¯øুইচ গেটও নির্মাণ করা হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে। কিন্তু সেই চরভরাটি জমিতে আজ ইজারা দিয়ে গড়ে তোলা হচ্ছে স্থাপনা। নির্মাণ হচ্ছে পাকা দোকানঘর আবার কেউ কেউ দখল করে গড়ে তুলেছে অবৈধ ইমারত। সাধারণজনগণ আর জীব-মৃত্যুর দিকে তাকালে এই মুহুর্তে ইজারা বাতিল করে গড়তে হবে বাইপাস। বাইপাসের দাবিতে তালা বাজার ব্যবসয়ী, সুধী সমাজসহ বিভিন্ন স্তরের মানুষ খুলনা বিভাগীয় কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরের উদ্বর্তন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

তালা বাজার ব্যবসায়ী সমিতির আহবায়ক সরদার মশিয়ার রহমান জানান, যেখানে দোকান ঘর এর জায়গা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে সেটি বাইপাসের জায়গা। ওখান দিয়ে বাইপাস রাস্তার কথা অনেকদিন ধরে চলছে। কিন্তু হঠাৎ শুনছি স্থানীয় ভুমি কর্মকর্তারা ইজারা দিয়ে দোকানঘর নির্মাণ করা হচ্ছে। বাইপাস বাদে দোকান নির্মাণ হলে আগেও মানুষ জীবন হারিয়েছে এখন আরও বেড়ে যাবে।

তালা সদর ইউপি চেয়ারম্যান সরদার জাকির হোসেন জানান, অনেক আগে থেকে সরকারের পরিকল্পনা ছিলো তালায় একটি বাইপাস সড়ক। কিন্তু স্থানীয় ভুমি কর্মকর্তারা জায়গা বরাদ্দ দিয়ে সেখানে গাঁথা হচ্ছে পাকা দোকানঘর ফলে আর হচ্ছেনা বাইপাস সড়ক। দিন দিন বেড়ে যাবে সড়ক দুর্ঘটনা, জীবন হারাবে আরও অনেক মানুষের। তিনি আরও বলেন, এই মুহুর্তে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের উর্দ্বতন কর্তৃপক্ষ সরেজমিন তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে ঘটে যেতে পারে বড়ধরনের দুর্ঘটনা।

তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজিয়া আফরীন জানান, আগে বাইপাসের জায়গা পরে দোকান বরাদ্দ। তালার উন্নয়ন করতে হলে আগে বাইপাস রাস্তা করতে হবে। নায়েবকে খবর দেওয়া হয়েছে সে খটনাস্থলে যাচ্ছে এবং ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলা হয়েছে।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.