March 4, 2024
খেলাধুলা

ডি ভিলিয়ার্স-গণমাধ্যম ইস্যুতে বিরক্ত দ. আফ্রিকা কোচ

 

 

 

ক্রীড়া ডেস্ক

গত বছর হঠাৎ করেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানান দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্স। তবে এই বিশ্বকাপের আগে নাকি দলে ফিরতে চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু তার সেই আবেদন নাকচ করে দেয় বোর্ড! চলমান আসরে নিজেদের প্রথম তিন ম্যাচ হারার পর এই বিষয়টি নিয়ে গণমাধ্যমে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। তবে এটিকে বাড়াবাড়ি মন্তব্য করে এ ব্যাপারে বিরক্তি প্রকাশ করেছেন প্রোটিয়া কোচ ওটিস গিবসন।

গেল গ্রীষ্মে দলে ফেরার আবেদন করেন ডি ভিলিয়ার্স। কিন্তু ততদিনে বিশ্বকাপের দল ঘোষণা করে ফেলেছে ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা। তারা ভেবেছে এখন ভিলিয়ার্সকে দলে নিলে দলের কাউকে অন্যায়ভাবে বাদ দিতে হবে। যা বোর্ড করতে চায়নি।

এবি ডি ভিলিয়ার্সের ব্যাপারে গিবসনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ভাল প্রশ্ন করেছেন এটা। দাঁড়ান, ভাবি… যতদূর মনে পড়ছে যেদিন বিশ্বকাপের দল ঘোষণা হওয়ার কথা, সেদিন সকালে এবি ফোন করেছিল আমাকে–তবে তার আগের রাতেও হতে পারে। তার আগে অবশ্য অনেক ঘটনা ঘটে গেছে। ওকে আগেই জানানো হয়েছিল যে বিশ্বকাপ খেলতে চাইলে ওকে পাকিস্তান আর শ্রীলঙ্কা সিরিজে খেলতে হবে। ও যে খেলেনি, তা আপনারা জানেন।’

দক্ষিণ আফ্রিকার বিশ্বকাপের ১৫ সদস্যের স্কোয়াড ঘোষণার মাত্র ২৪ ঘণ্টা আগে ডি ভিলিয়ার্স বোর্ডকে ফেরার প্রস্তাব দেয়। জানা গেছে, অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিস, প্রধান কোচ গিবসন ও নির্বাচক লিন্ডা জোন্ডির সঙ্গে বিশেষ ভাবে কথা বলেছেন ডি ভিলিয়ার্স। কিন্তু তারা তার প্রস্তাব তেমন আমলেই নেননি। গিবসন আরও বলেন, ‘এই তো, ডিসেম্বরেই দেখা হল। বারোই ডিসেম্বরে সুপারস্পোর্ট পার্কে ম্জান্সি লিগের একটা খেলায় ও টস করছিল আর আমি মাঠে একটা ইন্টারভিউ দিচ্ছিলাম। তখনই জিজ্ঞেস করলাম ওর অবসর-অবসর খেলা শেষ হয়েছে কিনা। ও বলল, ‘না, আমি আমার সিদ্ধান্ত, আমার অবসরপ্রাপ্ত জীবন নিয়ে খুশি।’ কী আর বলি!

‘গত বছর মে মাসে যেদিন ও পাকাপাকিভাবে অবসরের সিদ্ধান্ত সবাইকে জানাল, সেদিনও আমাকে জানিয়েছিল। দেশের হয়ে চায় না, কী বলি বলুন? হাত তো আর পাতা যায় না! তবে তাও বললাম, ‘এটা হয়ত ঠিক করছ না, আমাদের বিশ্বকাপ জিততে সাহায্য করতে পার তুমি।’ কিন্তু ও সিদ্ধান্তে অনড়; বলল, পরিবারের সঙ্গে আরও সময় কাটাতে চায়। এর ওপর তো আর কোনও কথা হয় না।’

প্রধানত দুই কারণে তাকে বিশ্বকাপ দলের বিবেচনায় আনতে চায়নি বোর্ড। এক-এক বছর আগে ভিলিয়ার্স অবসর নেন। এই সময়ের মধ্যে বিশ্বকাপে যারা খেলবেন তাদের নিয়ে কাজ করেছে বোর্ড,সেখানে হঠাৎ করেই তাকে ভাবা সম্ভব ছিলো না। দুই- বোর্ডের দেওয়া শর্ত অনুযায়ী কোনো ঘরোয়া টুর্নামেন্ট খেলেননি ভিলিয়ার্স। এমনকি কোনো ওয়ানডে ফরম্যাটেই খেলেননি তিনি।

বিশ্বকাপে এরই মধ্যে নিজেদের খেলা তিনটি ম্যাচেই হেরে গেছে ফাফ ডু প্লেসিসের দল। এই খারাপ সময়ের মধ্যে সামনে এলো ডি ভিলিয়ার্সের ফেরার আগ্রহের বিষয়টি। যা প্রোটিয়া সমর্থকদের আলোচনার বড় রসদ জুগিয়েছে। তবে এমন আলোড়ন পছন্দ করছেন না প্রধান কোচ। ১০ জুন রোজ বোলে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে খেলতে নামবে দ.আফ্রিকা।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *