ডাকসু নির্বাচনে ভোটকেন্দ্র হলেই : ওবায়দুল

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, অতীতে ডাকসু নির্বাচনের ভোটকেন্দ্র ছিল হলগুলোতে। এবারও ডাকসু নির্বাচনের ভোটকেন্দ্র হলেই হবে। এ নিয়ে বিতর্কের কিছু নেই। ডাকসু নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হবে। শিক্ষার্থীরা অবাধে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন।
গতকাল শুক্রবার ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি। ওবায়দুল কাদের বলেন, ডাকসু নির্বাচনকে সামনে রেখে জাতীয় রাজনীতিতে কোনও প্রভাব পড়বে না।
সংসদ বর্জন করা দলের জন্য ক্ষতিকর উলে­খ করে তিনি বলেন, বিএনপি যদি সংসদ বর্জনের মানসিকতা অনুসরণ করে, তাহলে সেটা তাদের অস্তিত্বের জন্য ক্ষতিকর। তারা সংসদে গেলে বিরোধীদের কণ্ঠ ভারী হবে। বিএনপি সংসদে সংখ্যায় কম হলেও তারা জোড়ালো ভূমিকা রাখতে পারে।
আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ৩০ ডিসেম্বরের অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন দেশে-বিদেশে প্রশংসিত হয়েছে। রাজনীতি জয়-পরাজয় আছে। নেতিবাচক রাজনীতির ধারা অব্যাহত রাখলে বিএনপি বিদেশি বন্ধুও হারাবে।
বিএনপির আন্দোলনে দেশের জনগণ আগ্রহী নয়-এমন মন্তব্য করে মন্ত্রী বলেন, মানুষ আন্দোলনে আগ্রহী নয়। গত দশ বছরে তারা কোনও আন্দোলন করতে পারেনি। আগামীতেও পারবে না।
কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী যে চা চক্রের আয়োজন করেছেন, বিএনপি-ঐক্যফ্রন্ট সেখানে খোলামেলা আলাপ করতে পারেন। প্রধানমন্ত্রীর চা-চক্রের আহ্বান বর্জন বিএনপি নেতিবাচক রাজনীতির ধারা। বিএনপি নেতিবাচক ধারা আঁকড়ে ধরায় তারা রাজনীতিতে খাদের কিনারায় পড়েছে।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.