টাঙ্গাইলে মাদ্রাসা ছাত্রীকে আটকে রেখে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ২

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
টাঙ্গাইলের সখীপুরে দশম শ্রেণির এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে ২১ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সখীপুর থানার ওসি আমির হোসেন জানান, সোমবার রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার বড় চওনা এলাকা থেকে মেয়েটিকে উদ্ধার করা হয়।
গ্রেপ্তাররা হলেন- উপজেলার কালিয়া বাজার এলাকার মজিবর রহমান (৪২) ও তার স্ত্রী আমেনা বেগম। মজিবরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুই দিনের রিমান্ডে পেয়েছে পুলিশ। মেয়েটিকে আপাতত পুলিশের হেফাজতে রাখা হয়েছে বলে ওসি জানান।
এজাহারে বলা হয়, মাদ্রাসায় যাতায়াতের পথে মজিবর মেয়েটিকে ‘অশালীন প্রস্তাব’ দিত। গত ২৪ ডিসেম্বর মেয়েটি উপজেলার কালিয়া বাজারে কেনাকাটার জন্য বেরিয়ে নিখোঁজ হয়। ওসি বলেন, মজিবর কালিয়া বাজার থেকে মেয়েটিকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। এরপর তাকে আটকে রেখে একাধিকবার ধর্ষণ করে বলে মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে। মেয়েটির মা বলেন, আমার মেয়েকে মজিবর তার প্রবাসী ছেলের বউ করার জন্য প্রস্তাব দেয়। আমরা রাজি না হওয়ায় সে এ ঘটনা ঘটিয়েছে।
ওসি বলেন, রোববার রাতে মেয়েটির মা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। পরে অভিযান চালিয়ে রাতেই মজিবরকে গ্রেপ্তার করা হয়। সোমবার সকালে মজিবরকে টাঙ্গাইল আদালতে হাজির করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে বিচারক দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। পরে তার দেওয়া তথ্যে মেয়েটিকে উদ্ধার করা হয়। স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য মেয়েটিকে টাঙ্গাইল সদর হাপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে বলে এ পুলিশ কর্মকর্তা জানান।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.