‘টাকার কুমির’ আবজালের সব সম্পদ জব্দ করার নির্দেশ

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
দুর্নীতির অভিযোগে বরখাস্ত স্বাস্থ্য অধিদফতরের হিসাবরক্ষক আবজাল হোসেনের সব সম্পদ জব্দ করার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল মঙ্গলবার ঢাকার বিশেষ জজ আদালতের ইমরুল কায়েস এ আদেশ দেন। বিষয়টি জানিয়েছেন দুদকের উপ-পরিচালক ও জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য।
বাংলানিউজকে তিনি বলেন, দুর্নীতির মাধ্যমে অবৈধ সম্পত্তির মালিক হওয়ার অভিযোগে দুদকের পক্ষ থেকে আদালতে আবজালের সকল স্থাবর-অস্থাবর সম্পদ জব্দ করার নির্দেশের আবেদন করা হয়। আদালত দুদকের আবেদন আমলে নিয়ে তার সম্পদ জব্দ করার নির্দেশ দিয়েছেন। এদিকে আদালতের নির্দেশনার পর সব সম্পদের তথ্য চেয়ে আবজাল হোসেনকে নির্দেশ দিয়েছে দুদক।
দুদকের তথ্য অনুযায়ী, ৩০ হাজার টাকার বেতন পেলেও ঢাকার উত্তরায় আবজাল হোসেন ও তার স্ত্রীর নামে বাড়ি আছে পাঁচটি। আরেকটি বাড়ি আছে অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে। আর রাজধানী ছাড়াও দেশের বিভিন্ন এলাকায় অন্তত ২৪টি প্লট ও ফ্ল্যাট রয়েছে। দেশে-বিদেশে আছে বাড়ি মার্কেটসহ অনেক সম্পদ। এসব সম্পদের বাজারমূল্য হাজার কোটি টাকারও বেশি।
দুদকের অনুসন্ধানে দেখা গেছে, আবজাল হোসেন গত একবছরে সিঙ্গাপুর, অস্ট্রেলিয়াসহ বিভিন্ন দেশে ২৮ বারেরও বেশি সপরিবারে সফর করেছেন। অস্ট্রেলিয়ার সিডনির পর্টার স্ট্রিট মিন্টুতে যে বাড়ি কিনেছেন, তার দাম দুই লাখ ডলারেরও বেশি।
এই অভিযোগে গত ১০ জানুয়ারি তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে দুদক। আবজালের বিরুদ্ধে দুর্নীতির চলমান অভিযোগের তদন্ত করছেন দুদকের উপ-পরিচালক শামসুল আলম। এদিকে দুর্নীতি অভিযোগ ওঠায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সুপারিশের পরিপ্রেক্ষিতে চাকরি থেকে আবজালকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.