June 12, 2024
জাতীয়

টঙ্গীতে প্রতিপক্ষের হামলায় ছাত্রলীগ কর্মী খুন

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
গাজীপুরের টঙ্গীতে আধিপত্য বিস্তারের বিরোধে প্রতিপক্ষের হামলায় এক ছাত্রলীগ কর্মী খুন হয়েছেন। নিহত প্রিন্স মাহমুদ নাহিদ (২৮) টঙ্গীর দত্তপাড়া এলাকার জহিরুল ইসলামের ছেলে। টঙ্গী থানা ছাত্রলীগের কর্মী ছিলেন তিনি।
টঙ্গী পূর্ব থানার এসআই শুভ মণ্ডল জানান, ভরান মুন্সিপাড়া এলাকায় শুক্রবার বিকেলে ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় মুন্না নামের এক কিশোর আহত হয়। নাহিদ আহত মুন্নাকে দেখতে তার বাড়ি যান। সেখান থেকে মুন্নার স্বজনদের সঙ্গে কাউন্সিলরের বাসায় যাওয়ার পথে টঙ্গী বাজার এলাকায় রাত পৌনে ৮টার দিকে প্রতিপক্ষের লোকজন তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে পালিয়ে যায়। আহত নাহিদ প্রথমে টঙ্গীর শহীদ আহসান উল­াহ মাস্টার জেনারেল হাসতালে নেওয়া হয়। পরে কুর্মিটোলা হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন বলে জানান এসআই শুভ।
থানার ওসি মো. কামাল হোসেন বলেন, এলাকার রাফি, আশিক ও মামুনের সঙ্গে নাহিদের শত্র“তা ছিল। এর জেরেই হত্যাকাণ্ড ঘটে থাকতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। তাদের আটকের জন্য অভিযান চলছে। তদন্তের পর প্রকৃত ঘটনা বেরিয়ে আসবে।
নাহিদের এক বন্ধু নাম না জানিয়ে বলেন, নাহিদ উত্তরার আব্দুল­াহপুরের একটি কলেজে লেখাপড়ার পাশাপাশি ’স’ মিলের ব্যবসায় জড়িত ছিলেন। এলাকায় প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে কয়েকজনের সঙ্গে তার বিরোধ ছিল। মুন্না নামের ওই কিশোরকে আহত করার সঙ্গেও তারা জড়িত।
নিহত নাহিদের বড় ভাই জুয়েল মাহমুদ পারভেজ সাংবাদিকদের বলেন, তাদের বাড়ি টঙ্গীর দত্তপাড়া এলাকায়। নাহিদ টঙ্গী ভরান এলাকায় তার শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিলেন। সেখানেই পূর্বশত্র“তার জেরে নাহিদকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করা হয়।
নাহিদ টঙ্গী পূর্ব থানা ছাত্রলীগের কর্মী ছিলেন এবং উত্তরার একটি কলেজে লেখাপড়া করতেন বলে টঙ্গী থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মশিউর রহমান বাবু জানিয়েছেন। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *