ঝিনাইদহে মামলা করে বেকায়দায় মুক্তিযোদ্ধা

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

গ্রাম্য কুচক্রিদের ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা লতা জোর্য়াদ্দার এর পরিবার। ষড়যন্ত্র কারীদের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করে পরিবারটি এখন নিরাপত্তাহীন। কুচক্রি মহল পরিবারটির কাছ থেকে ২ লাখ টাকা চাঁদা আদায় করার জন্য উঠে পড়ে লেগেছে। তারা বে-আইনী ভাবে ওই পরিবার টিকে বে-কায়দায় ফেলে টাকা আদায় করার জন্য নানা ধরনের কৌশল অবলম্বন করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনাটি ঝিনাইদহ সদর উপজেলার রাধাকান্তপুর গ্রামের। এদিকে ভূক্তভোগী পরিবারের দায়ের করা মামলা তদন্ত করছে পুলিশের তদন্ত সংস্থা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেষ্টিগেশন (পি বি আই)।

ভুক্তভোগী মুক্তিযোদ্ধা ঝিনাইদহ সদর উপজেলার রাধাকান্তপুর গ্রামের ৮০ বছরের বৃদ্ধ লতা জোর্য়াদ্দার অভিযোগ করেন, একই গ্রামের আজিম আলী জোর্য়াদ্দার, ও তার ছেলে সাগর আলী ওরফে টুলু সহ ৩/৪  জন অজ্ঞাত লোক ২০১৮ সালের ২০ নভেম্বর রাত ৮ টার সময় উল্লিখিত ব্যক্তিরা বিভিন্ন অস্ত্র শস্ত্র সহ তার বাড়ীতে ঢুকে খুন জখমের ভয় দেখায় এবং ২ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করে। চাঁদার টাকা দিতে অস্বীকার করলে মুক্তিযোদ্ধা লতা জোয়াদ্দারকে গলায় গামছা পেচিয়ে বাড়ীর উঠানে ফেলে পিটিয়ে ও পড়িয়ে জখম করা হয়। এইসব ঘটনায় ঝিনাইদহের দ্রুত বিচার আদালতে মুক্তিযোদ্ধা লতা জোয়াদ্দার বাদী হয়ে আসামী আজিম আলী জোয়াদ্দার, সাগর আলী ওরফে টুলু ও অজ্ঞাত ৩/৪ জনের বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনের ৪/৫ ধারায় মামলা দায়ের করেন। মামলাটি আদালত ঝিনাইদহের পিবিআই এর উপর তদন্তের আদেশ দিয়েছেন।

মুক্তিযোদ্ধা লতা জোয়াদ্দার আরও জানান, ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর মাসের ১৪ তারিখে বিদেশে লোক পাঠানো সংক্রান্তে স্থানীয় চেয়ারম্যান এর মাধ্যমে আজিম আলীকে ৬ লাখ টাকা এবং বাবুর আলী বিশ্বাসকে ৩ লাখ ৫ হাজার টাকা দিয়ে দুটি বিরোধ আপোস করেন। তাই গ্রাম্য কুচক্রি মহলের সদস্যরা ফজলুর রহমান, সাগর ক্ষিপ্ত হয়ে আবারো ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করেছে। তাছাড়া ওই চক্রটি মুক্তিযোদ্ধা লতা জোয়াদ্দার ও তার ছেলে জাহাঙ্গীর হোসেন হৃদয়কে বে-কায়দায় ফেলে চাঁদার টাকা আদায় করার চেষ্টা করছেন। তিনি আরও জানান, ইতি পূর্বেও ওই চক্রটি একটি মিথ্যা প্রতারনার মামলা করেছিল। সে মামলা পিবিআই তদন্ত করেছিল। যে অভিযোগের কোন সত্যতা ছিলনা বলে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করা হয়। এই ব্যাপারে অপর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন বলেন, টাকা পয়সা লেনদেন নিয়ে এলাকায় একটি বিরোধ চলছে। মুক্তিযোদ্ধা লতা জোয়াদ্দার পাওনাদারদের টাকা পরিশোধ করলেও টাকাগুলো  তৃতীয় পক্ষ আত্বসাৎ করেছে।  ফলে এব্যাপারে একটি মহল আগামী কাল শুক্রবার ১৮ মাইল বাজারে একটি শালিস ডেকেছেন  বলে তিনি শুনেছেন। এছাড়া কুমড়া বাড়ীয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আশরাফুল ইসলাম বলেন, ব্যাপারটি তিনি আগেই আপোষ করেছিলেন। তবে বর্তমানে কেন আবার এমন হচ্ছে, তা তিনি বলতে পারেন না। অপর দিকে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেষ্টিগেশন (পিবিআই ) ঝিনাইদহ এলাকার পুলিশ পরিদর্শক মোঃ আঃ রব বলেন, মুক্তিযোদ্ধা লতা জোয়াদ্দারের  দায়ের করা দ্রুত বিচার আইনের কোর্ট পিটিশন মামলাটি তিনি তদন্ত করছেন। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত ব্যাক্তিদের বক্তব্য জানার জন্য তাদের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাদের ভাষ্য জানা সম্ভব হয়নি।

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.