ঝালকাঠিতে গুলিবিদ্ধ লাশের গলায় চিরকুট : ‘ধর্ষণের এই পরিণতি’

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
ঝালকাঠিতে ধর্ষণ মামলার এক আসামির গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ; যার গলায় ঝোলানো চিরকুটে লেখা রয়েছে, ‘ধর্ষণের কারণে আমার এই পরিণতি।’ কাঁঠালিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এনামুল হক জানান, শনিবার বেলা ২টার দিকে বলতলা গ্রামের একটি ধানক্ষেত থেকে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে। নিহত সজল জোমাদ্দার (২৮) পাশের জেলা পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া উপজেলার নদমুলা গ্রামের আলম জোমাদ্দারের ছেলে।
পরির্শক এনামুল বলেন, মাথায় গুলিবিদ্ধ অবস্থায় সজলের লাশ উদ্ধার করা হয়। তার গলায় সুতা দিয়ে ঝুলানো একটি চিরকুটে লেখা ছিল: ‘আমার নাম সজল, মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণ করার কারণে আমার এই পরিণতি’।
গত ১২ জানুয়ারি পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া উপজেলার নদমুলা গ্রামের বাড়ি থেকে পাশের হেতালিয়া গ্রামে নানাবাড়ি বেড়াতে যাওয়ার পথে এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে মুখ চেপে ধরে নিয়ে পানের বরজে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে সজলের বিরুদ্ধে।
এ ঘটনায় ছাত্রীর বাবা ভাণ্ডারিয়া থানায় সজলসহ দুইজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলার পর থেকে উভয় আসামি পালাতক ছিলেন বলে জানান ভাণ্ডারিয়া থানার এসআই তারিকুল। লাশ উদ্ধারের খবর পেয়ে ঝালকাঠির পুলিশ সুপার মো. জোবায়েদুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.