জাহিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা শিগগিরই : ফখরুল

 

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক

দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে জাহিদুর রহমান জাহিদ সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেওয়ায় তাকে শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে বলে জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইমলাম আলমগীর। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে আকস্মিকভাবে জাহিদ শপথ নেওয়ার পর সন্ধ্যায় একথা সাংবাদিকদের জানান ফখরুল।

তিনি বলেন, দলের সিদ্ধান্ত হচ্ছে, শপথ গ্রহণ না করা। এই সিদ্ধান্তকে অমান্য করে যদি কেউ শপথ গ্রহণ করে থাকেন, তা নিঃসন্দেহে সাংগঠনিক অপরাধ। অবশ্যই এরকম ব্যক্তির বিরুদ্ধে দ্রুতই শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

তবে কী ব্যবস্থা নেওয়া হবে, তা স্পষ্ট করেননি বিএনপি মহাসচিব। সা¤প্রতিক উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নেওয়ায় শতাধিক স্থানীয় নেতাকে বহিষ্কার করে দলটি।

ফখরুলের জেলা ঠাকুরগাঁও-৩ আসন থেকে এবারই প্রথম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন জাহিদ। ঠাকুরগাঁওয়ের আরেকটি আসনে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করলেও হারতে হয় ফখরুলকে। তিনি বগুড়া-৬ আসন থেকে নির্বাচিত হন। একাদশ সংসদ নির্বাচনে বিএনপির মোট ছয়জন বিজয়ী হন; এছাড়া গণফোরামের দুজনকে নিয়ে তাদের জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্যের সংখ্যা দাঁড়ায় ৮।

৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ সংসদ নির্বাচনে ভোট ডাকাতির অভিযোগ তুলে পুনর্র্নিবাচনের দাবি তোলা বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্ট ঘোষণা দেয়, তাদের জোট থেকে বিজয়ী কেউ শপথ নেবেন না। গত ২৯ জানুয়ারি একাদশ সংসদের অধিবেশন শুরু হয়েছে বলে ৯০ দিনের মধ্যে অর্থাৎ ২৯ এপ্রিলের মধ্যে নির্বাচিতরা শপথ না নিলে তাদের আসন শূন্য ঘোষণা করবে ইসি।

ফলে ভোটে জিতলেও আসন হারানোর ঝুঁকিতে রয়েছেন ফখরুল, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনে বিজয়ী আমিনুল ইসলাম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনে বিজয়ী হারুনুর রশীদ, বগুড়া-৪ আসনে জয়ী মোশাররফ হোসেন ও ব্রাক্ষণবাড়িয়া-২ আসনে বিজয়ী উকিল আবদুস সাত্তার।

সংসদে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে থাকা ক্ষমতাসীন দলের এই নেতা বলেছেন, আমরা আশা করি, (বিএনপির) বাকিরাও খুব শিগগিরই শপথ নেবেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে ফখরুল বলেন, আমি স্পষ্ট করে বলে দিতে চাই, বিএনপির সিদ্ধান্ত হচ্ছে শপথ গ্রহণ না করার। সুতরাং এখন প্রশ্নই উঠতে পারে না শপথ নেওয়ার। এদিকে দলকে উপেক্ষা করে শপথ নেওয়ায় জাহিদকে গণদুষমন বলেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.