জার্মানিতে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
একটি আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা সম্মেলনে যোগ দিতে জার্মানির মিউনিখে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছয় দিনের এই সফরে সংযুক্ত আরব আমিরাতের আবুধাবিতে একটি প্রতিরক্ষা প্রদর্শনীতেও তিনি যোগ দেবেন। দেশ দুটির শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকেও তিনি অংশ নেবেন।
গত ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে জয়ী হয়ে টানা তৃতীয় মেয়াদে সরকার গঠনের পর এটাই শেখ হাসিনার প্রথম বিদেশ সফর। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ভিভিআইপি ফ্লাইটে বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকা থেকে রওনা হন প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীরা। স্থানীয় সময় বেলা বেলা ১টা ১০ মিনিটে তারা মিউনিখ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান। জার্মানিতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ইমতিয়াজ আহমেদ সেখানে তাকে স্বাগত জানান।
বিকালে মিউনিখের হোটেল শেরাটনে প্রবাসী বাংলাদেশিদের একটি সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন শেখ হাসিনা। মিউনিখ সফরে ওই হোটেলেই তিনি অবস্থান করবেন। মিউনিখ সিকিউরিটি কনফারেন্সের যাত্রা শরু হয়েছিল ১৯৬৩ সালে। স্নায়ুযুদ্ধের পটভূমিতে সূচনা হলেও পাঁচ দশকের বেশি সময় ধরে এই সম্মেলন বিশ্ব নিরাপত্তা ও বিভিন্ন পরিবর্তনের প্রেক্ষিত নিয়ে আলোচনা করে আসছে।
এর আগে ২০১৭ সালে মিউনিখ সম্মেলনে যোগ দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সম্মেলনে বাংলাদেশের কোনো রাষ্ট্র বা সরকার প্রধানের অংশগ্রহণ ছিল সেবারই প্রথম। এবার জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে নিরাপত্তা হুমকি ও স্বাস্থ্য নিরাপত্তা নিয়ে দুটি সেশনে প্রধানমন্ত্রীকে আলোচনার আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে বলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন জানিয়েছেন।
বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সরকারপ্রধান হিসেবে শেখ হাসিনা তার আলোচনা পর্বে রোহিঙ্গা সংকট নিয়েও কথা বলবেন। আমরা আশা করছি, জার্মান চ্যান্সেলরের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর একটি দ্বিপক্ষীয় বৈঠক হবে, বলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।
পাশাপাশি সিমেন্স এজির প্রেসিডেন্ট ও সিইও জোয়ে কাইজার এবং ভেরিডোস জিএমবিএইচের প্রধান নির্বাহী হ্যান্স উল্ফগাং কুনজ প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন। ভেরিডোস জিএমবিএইচ বাংলাদেশে ই-পাসপোর্ট বাস্তবায়ন করছে। এই সফরে বাংলাদেশে বিদ্যুৎ খাতে বড় বিনিয়োগের প্রস্তাবকারী সিমেন্সের সঙ্গে জয়েন্ট ডেভেলপমেন্ট চুক্তি হতে পারে বলেও পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.