জাতীয় অ্যাথলেটিক্সের ১০০ মিটারে সেরা শিরিন-ইসমাইল

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
জাতীয় অ্যাথলেটিক্সের মেয়েদের ১০০ মিটারের মুকুট ধরে রেখেছেন শিরিন আক্তার। ছেলেদের বিভাগে গতবারের চ্যাম্পিয়ন হাসান মিয়াকে পেছলে ফেলে সেরা হয়েছেন প্রথমবার এই ইভেন্টে নামা মোহাম্মদ ইসমাইল। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের ট্র্যাকে বৃহস্পতিবার ১০ দশমিক ২৬ সেকেন্ড সময় নিয়ে সেরা হন ইসমাইল। গতবার ১০ দশমিক ৮০ সেকেন্ড সময় নিয়ে সেরা হওয়া হাসান এবার হয়েছেন দ্বিতীয়। লং জাম্প থেকে ১০০ মিটারে নেমেই সফল হওয়া ইসমাইল আরও ভালো প্রশিক্ষণের দাবি জানালেন।
১০০ মিটার স্প্রিন্ট এ প্রথমবার; তবে আগে রিলে করতাম। ১০০ মিটারে খেলাটা আমার রাগবশত। রাগটা হচ্ছে লং জাম্পে ভাল করা সত্তে¡ও সুযোগ সুবিধা পাওয়া যায় না। আমি এখন ১০০ মিটারে জিতেছি। এখন সুযোগ সুবিধাটা আমি নেবো। কারণ এটাকে সবাই গুরুত্ব দেয়।
ফেডারেশন যদি সেরকম সুযোগ সুবিধা দেয়, তাহলে এসএ গেমসে যে কোন কিছুই করা সম্ভব। সুযোগ সুবিধা বলতে বিদেশি কোচের অধীনে লম্বা সময়ের ট্রেনিং। অথবা দেশের বাইরে ট্রেনিংয়ে পাঠালে অবশ্যই এই লেভেলে ভাল করা সম্ভব। ২ মাস আগে ক্যাম্প করালে তো সম্ভব নয়।
মেয়েদের বিভাগে সেরা হওয়া শিরিন ১১ দশমিক ৮০ সেকেন্ডে দৌড় শেষ করেন। গতবারের মতো এবারও দ্বিতীয় হওয়া সোগাহী আক্তার দৌড় শেষ করেন ১১ দশমিক ৯০ সেকেন্ডে। এ নিয়ে টানা অষ্টমবারের মতো ১০০ মিটারে সেরা হলেন শিরিন। ইলেক্ট্রনিক টাইমিংয়ে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর এই অ্যাথলেটের সেরা টাইমিং ১১ দশমিক ৯৯ সেকেন্ড। এবারও হ্যান্ড টাইমিংয়ে প্রতিযোগিতা হওয়ায় হতাশা জানান যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ হাসান রাসেল।
এভাবে চললে তো ফেডারেশনের কোনো কথা কেউ পরে আর বিশ্বাস করবে না। এরপর বড় কোন আসরের আগে এনএসসিকে জানাবেন, চিঠি দেবেন। এরপর থেকে কার্যকর কোনো ভূমিকা না থাকে তবে আমরা আপনাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিব।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.