জাতিসংঘ বৈষম্যের বিরুদ্ধে বিশ্ববাসীর মনন তৈরিতে সক্ষম : খুবি ভিসি

খবর বিজ্ঞপ্তি
গতকাল সোমবার সকাল ১০টায় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য জগদীশচন্দ্র বসু একাডেমিক ভবনের সাংবাদিক লিয়াকত আলী মিলনায়তনে বৈশ্বিক উন্নয়নে জাতিসংঘের ভ‚মিকা: প্রেক্ষিত বাংলাদেশ শীর্ষক এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। জাতিসংঘের শিশুবিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ এবং খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান, ডিভেলপমেন্ট স্টাডিজ, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা এবং আইন ডিসিপ্লিনের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এ সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন আইন ডিসিপ্লিনের প্রধান প্রফেসর ড. মোঃ ওয়ালিউল হাসানাত। সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান।
তিনি বলেন, জেন্ডার ইস্যুতে, শিশুদের সুরক্ষায়, নারী-পুরুষের বৈষম্য বিলোপে, নারীর ক্ষমতায়নে, হিউম্যান রাইটস প্রতিষ্ঠা, খাদ্য, আবাসনসহ জলবায়ু পরিবর্তনজনিত সমস্যা মোকাবেলা, দুর্যোগ-দুর্বিপাকসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে জাতিসংঘ এখন অনেক ব্যাপ্তিশীল এবং গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা পালন করে যাচ্ছে। তাই বলা যায়, বিভিন্ন কারণে জাতিসংঘ অনেক ক্ষেত্রে কার্যকর ভ‚মিকা পালন করতে না পারলেও বৈষম্যের বিরুদ্ধে বিশ্ববাসীর মনন তৈরিতে সক্ষম হয়েছে। জাতিসংঘই এখনও বিশ্ববাসীর ভরসার স্থল।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন খুলনাস্থ ভারতীয় হাইকমিশন অফিসের সহকারী হাইকমিশনার রাজেশ কুমার রায়না, ট্রেজারার প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ, খুলনা সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা পলাশ কান্তি বালা, অতিক্তি জেলা প্রশাসক মোঃ ইকবাল হোসেন এবং ইউনিসেফের আঞ্চলিক মাঠ প্রধান মোঃ কফিল উদ্দিন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ডিভেলপমেন্ট স্টাডিজ ডিসিপ্লিন প্রধান কাজী হুমায়ুন কবীর। উদ্বোধনী পর্বের পর টেকনিক্যাল সেশনে সভাপতিত্ব করেন রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর খান গোলাম কুদ্দুস। টেকনিক্যাল সেশনে তিনটি পেপার পাওয়ার পয়েন্টে উপাস্থাপন করেন যথাক্রমে সমাজবিজ্ঞান ডিসিপ্লিনের প্রধান প্রফেসর ড. মোঃ আব্দুল জববার, ডিভেলপমেন্ট স্টাডিজ ডিসিপ্লিন প্রধান কাজী হুমায়ুন কবীর এবং আইন ডিসিপ্লিনের সহকারী অধ্যাপক তালুকদার রাসেল মাহমুদ। সঞ্চালনা করেন সমাজবিজ্ঞান ডিসিপ্লিনের সহযোগী অধ্যাপক ড. তুহিন রায় এবং আইন ডিসিপ্লিনের প্রভাষক পুনম চক্রবর্তী। সেমিনারে খুলনার শিক্ষা, স্বাস্থ্য, পরিবার পরিকল্পনা, প্রশাসন, তথ্য অধিদপ্তর, ইউনিসেফের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন স্কুলের ডিন, সমাজবিজ্ঞান, ডিভেলপমেন্ট স্টাডিজ, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা এবং আইন ডিসিপ্লিনের শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ অংশ নেন। এর আগে সকাল দশটায় অদম্য বাংলা চত্তর থেকে একটি শোভাযাত্রা বের হয়ে প্রশাসন ভবনের সামনে দিয়ে আচার্য জগদীশচন্দ্র বসু একাডেমিক ভবনের সামনে গিয়ে শেষ হয়।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.